নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: অত:পর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ছাড়াই বিতর্কের মুখে ‘চুপিসারে’ শুরু হয়ে গেছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম।
কেন্দ্রীয় নেতাদের সময়ের অভাবের কারনেই অনানুষ্ঠানিক ভাবেই মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সেক্রেটারী এই কার্যক্রম শুরু করে দিয়েছেন। ইতিমধ্যেই মহানগরের আওতাধীন ২৭ টি ওয়ার্ডের দলীয় নেতৃবৃন্দদের হাতে দলীয় নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ণ কার্যক্রম সম্পন্নের লক্ষ্যে তারা বই তুলে দিচ্ছেন বলে জানাযায়।

তবে এই বই তুলে দেয়ার ক্ষেত্রে প্রকৃত নেতৃত্বে থাকা নেতাদের পরিবর্তে চুপিসারে ‘হাইব্রীড’ জাতীয় নেতাদের হাতে তুলে দেয়া হচ্ছে বলে মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন তৃণমূলের নেতৃবৃন্দরা।

কিন্তু বিকর্ত সত্ত্বেও কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ না আসলেও খোদ মহানগর আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দরা আনুষ্ঠানিক ভাবে দলীয় সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু না করে চুপিসারে বই বিতরনের মাধ্যমে সদস্য সংগ্রহ শুরু করে দেয়ায় চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দরা।

দলীয় সূত্র জানায়, বহু চেষ্টার পর দলীয় নতুন সদস্য সংগ্রহ অভিযান শুরুর প্রস্তুতি নিয়েছিল মহানগর আওয়ামীলীগ। গত ৫ অক্টোবর কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের ঢাকা বিভাগীয় যুগ্ম সম্পাদক ডা: দিপু মনি এমপি দ্বারা আনুষ্ঠানিক ভাবে দলীয় সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম উদ্বোধনের দিন ধার্য করেছিল মহানগর আওয়ামীলীগ। কিন্তু সেদিন দিপুমনি আসতে অসম্মতি জানানোয় পরবর্তীতে স্থগিত করা হয় মহানগর আওয়ামীলীগের উদ্যোগে নতুন সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম।

স্থগিত হওয়ার চলতি অক্টোবর মাসে সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা থাকলেও রবিবার (২২ অক্টোবর) ১০ দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেন বিদেশ সফরে যাওয়ার ফলে দলীয় সদস্য সংগ্রহ অভিযান কার্যক্রম দেরী হয়ে হয়ে যাওয়ায় এখন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে বই বিতরনের মাধ্যমেই অনানুষ্ঠানিক ভাবে এই কার্যক্রম শুরু করে দিয়েছেন বলে নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে জানান মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহা।

তিনি জানান, ‘দলীয় নতুন সদস্য সংগ্রহ আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধনের লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সময় পাওয়া না যাওয়ায় ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে বই বিতরনের মাধ্যমে অনানুষ্ঠানিক ভাবেই এই কার্যক্রম শুরু করে দিয়েছি।’

অথচ, গত ২০ মে গণভবনে আওয়ামীলীগ সভাপতি শেখ হাসিনা দলীয় নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ণ কার্যক্রম উদ্বোধন করার পর নারায়ণগঞ্জে প্রায় ২৫ হাজার নতুন সদস্য সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে সদস্য সংগ্রহ অভিযান পরিচালনায় ২৭ টি ওয়ার্ডে আহবায়ক কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল মহানগর আওয়ামীলীগ।

৭ জুন দুপুরে চাষাড়া ডাক বাংলোয় আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সভায় সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহার প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে সর্বসম্মতিক্রমে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

কিন্তু ওয়ার্ড পর্যায়ে আহবায়ক কমিটি গঠনের পরিবর্তে মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেন ও সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহার যোগসাজশে বন্দর থানাধীন ৯ টি ওয়ার্ডে চুপিসারে ‘হাইব্রীড’ জাতীয় নেতাদের হাতে দলীয় নতুন সদস্য সংগ্রহের বই তুলে দিয়ে তারা ‘ছলচাতুরি’র আশ্রয় নিয়েছেন বলে অভিযোগ করেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।

আর এই ‘ছলচাতুরি’ করে বন্দর থানাধীন ৯ টি ওয়ার্ডে দলীয় নতুন সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম অভিযানের লক্ষ্যে ‘হাইব্রীড’ জাতীয় নেতাদের কাছে চুপিসারে বই হস্তান্তরের প্রতিবাদে গত ২২ অক্টোবর বিকেলে নাসিক ২৩ নং ওয়ার্ড নবীগঞ্জে মহানগর আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন কবীর মৃধার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে এম এ রশীদ মহানগর আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতাদের এহেন কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, ‘বন্দরে ৯টি ওয়ার্ডের দায়িত্বশীল নেতাদের না জানিয়ে ‘হাইব্রীড’ নেতাদের কাছে সদস্য সংগ্রহ বই তুলে দেওয়ার ঘটনায় বেশ মর্মাহত হয়েছে আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতারা। মহানগরের দায়িত্বশীল কতিপয় নেতা’র এমন আচরণের কারণে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা। এনিয়ে যদি কোন উদ্ভুত পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে এর দায়ভার মহানগর আওয়ামী লীগকেই নিতে হবে।’

তবে তৃণমূলের সকল অভিযোগ অস্বীকার করেছেন, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহা। তিনি উল্টো দাবী করেন, ‘বন্দর থানা আওয়ামীলীগ সভাপতি হচ্ছেন জেলা আওয়ামীলীগের অধীন। তাই তিনি মহানগর আওয়ামীলীগ নিয়ে কোন কথা বলার এখতিয়ারই রাখেন না।’

জানাগেছে, গত ৩০ জুলাই কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের ঢাকা বিভাগীয় যুগ্ম সম্পাদক ডা: দিপুমনি এমপি ও সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিষ্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলকে দিয়ে জেলা আওয়ামীলীগ আনুষ্ঠানিক ভাবে দলীয় নতুন সদস্য সংগ্রহ ও সদস্য নবায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধন করলেও এখনো পর্যন্ত দলীয় সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু করতে পারেনি মহানগর আওয়ামীলীগ।

তন্মধ্যে নাসিকের অধীনস্থ ২৭টি ওয়ার্ডে মাত্র ২০ থেকে ২৫ হাজার নতুন সদস্য সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে ৫ অক্টোবর মহানগর আওয়ামীলীগ সদস্য সংগ্রহ অভিযান কার্যক্রম শুরুর লক্ষ্যে প্রস্তুতি নিতে শুরু করলেও অনিবার্য কারনে ফের তা আবার স্থগিতও হয়ে যায়।

কারন হিসেবে, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহা এক বিবৃতিতে জানিয়েছিলেন, ‘৫ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের উদ্যোগে দলীয় নতুন সদস্য সংগ্রহ অভিযানের উদ্বোধন হওয়ার দিনক্ষন থাকলেও ৭ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেশে ফেরা উপলক্ষ্যে কেন্দ্রীয় নেতারা নেত্রীকে অভ্যর্থনা জানাতে প্রস্তুতি নিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। যে কারণে নারায়ণগঞ্জের অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় নেতারা আসতে পারবেন না। তাই আমাদের কর্মসূচী আপাতত স্থগিত রাখা হলো।’

পরবর্তীতে চলতি মাসের শেষ নাগাদ সদস্য সংগ্রহ অভিযান শুরু করার পরিকল্পনা থাকলেও এখন আর উদ্বোধন ছাড়াই শুরু হয়ে গেছে মহানগর আওয়ামীলীগের নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ণ কার্যক্রম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here