নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নগরীর ফুটপাতে হকার উচ্ছেদে কঠোর মনোভাব ব্যক্তর পর এবার কিছুটা হলেও নমনীয় হলেন নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনের এমপি ও বিকেএমইএ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ এ কে এম সেলিম ওসমান।
আগামী রবিবার দেশের বাইরে যাওয়ার প্রাক্কালেই শনিবার (১৩ জানুয়ারী) আন্দোলনরত হকারদের সাথে আলোচনায় বসে এখন তাদের সমস্যার সমাধানের উদ্যোগ নিয়েছেন সেলিম ওসমান। পাশাপাশি আর কোন ধরনের বিশৃংখলা বা আন্দোলন না করতে হকারদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে নারায়ণগঞ্জ হকার্স সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি মো: আসাদুল ইসলাম আসাদ জানান, ‘সত্যিই সেলিম ওসমান একজন যোগ্য এমপি ও ব্যবসায়ী নেতা। প্রথমে তিনি আমাদের উচ্ছেদের জন্য মেয়রকে সমর্থণ জানালেও অত:পর আমাদের কষ্ট বুঝতে পেরে এখন আমাদের পুনর্বাসনের লক্ষ্যে আলোচনায় বসতে সম্মত হয়েছেন। এজন্য আন্দোলনরত সকল হকার ভাইদের পক্ষ থেকে আমি এমপি স্যারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘শুক্রবার (১২ জানুয়ারী) এমপি স্যার আমাকে ফোন করে হকারদের আর কোনরূপ আন্দোলন বা বিশৃংখলা সৃষ্টি না করার আহ্বান জানিয়েছেন। পাশাপাশি শনিবার (১৩ জানুয়ারী) বিকেলে আমাদের সাথে আলোচনায় বসে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন।’

তাই শুক্রবার বিকেলের পর থেকে ফুটপাতে হকাররা বসার চেষ্টা করলেও এমপি স্যারের আহ্বানে সাড়া দিয়ে কোন হকার ফুটপাতে বসেনি বলে দাবী করেন আসাদুল ইসলাম আসাদ।

এরআগে গত বছরের ২৫ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া নাসিক ও পুলিশের অনবরত উচ্ছেদ অভিযানের কারনে কয়েক সপ্তাহ যাবত হকাররা ফুটপাতে বসার সুযোগ না পেয়ে আন্দোলন শুরু করেন। উচ্ছেদের পূর্বে পুনর্বাসনের লক্ষ্যে মেয়র, ডিসি ও এসপিকে স্মারকলিপি প্রদান করেন তারা।

এরপর জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা মোতাবেক পুনর্বাসনের লক্ষ্যে প্রায় ৩ হাজার হকারের পুর্নাঙ্গ তালিকা জমা দেন হকার্স সংগ্রাম পরিষদ। তারপর গত ১১ জানুয়ারী নগরীর চাষাড়াস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রতীকি অনশন কর্মসূচীতে বক্তব্যকালে হকার্স সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি আসাদুল ইসলাম আসাদ শুক্রবার বিকেলে ফুটপাতে হকারদের বসার ঘোষণা দেন। আর হকার বসার পর যদি কোন ধরনের উচ্ছেদ বা পুলিশের অত্যাচার চলে তাহলে উদ্ভুত পরিস্থিতির জন্য মেয়র ও পুলিশ প্রশাসন দায়ী থাকবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here