নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: অত:পর নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাইয়ের সাথে সম্পর্কের দূরত্ব ঘুঁচাতে শুরু করেছেন সাধারন সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদল।
বুধবার (৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় শহরের চাষাড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ‘বঙ্গবন্ধুর ভাষণ ইউনেস্কোর স্বীকৃতি’ পাওয়ায় জেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে উভয়কেই পাশাপাশি দাঁড়িয়ে একমঞ্চে বক্তব্য দিতে দেখে এমনটাই প্রতীয়মান হয়েছে বলে মন্তব্য করেন অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত আওয়ামীলীগের একাধিক নেতা।

জানাগেছে, বেশ কয়েকমাস যাবত জেলা আওয়ামীলীগের ব্যানারে যে কোন কর্মসূচীই একক ভাবে পালন করে আসছিলেন আব্দুল হাই ও ভিপি বাদল। হঠাৎ করেই আব্দুল হাইয়ের সাথে বাদলের সম্পর্কে দূরত্ব সৃষ্টি হওয়ায় গণমাধ্যমে বেশ আলোচনার সৃষ্টি হয়।

যার প্রেক্ষিতে ইদানীংকালে জেলা আওয়ামীলীগের ব্যানারে সাধারন সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদল একক ভাবে একের পর এক দলীয় কর্মসূচী পালন করায়, আব্দুল হাইয়ের সাথে তার যে দূরত্ব সৃষ্টি হয়েছে তা ক্রমশই প্রকাশ্য হতে থাকে।

কিন্তু কি কারনে হঠাৎ জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাইয়ের সাথে সাধারন সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদলের দূরত্বের সৃষ্টি হয়েছে, তা স্পষ্ট করে কখনো কেউ বলেনি।

এরপর গত ৫ নভেম্বর সোনারগাঁ উপজেলাধীন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মোগরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের সামনে জেল হত্যা দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ভাষন জাতিসংঘ (ইউনেস্কো) আন্তর্জাতিক রেজিষ্টার স্মারকে ‘মেমোরী অব দ্যা ওয়াল্ড’ ইন্টার ন্যাশনাল রেজিষ্টারে অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত জনসভায় যখন অতিথি হিসেবে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই ও সাধারন সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদল যোগ দিয়ে এক মঞ্চে বসেছিলেন, তখন দলীয় নেতাকর্মীরা ভেবেছিলেন, হয়তো কয়েক মাস পূর্বে উভয়ের সম্পর্কে সৃষ্ট হওয়া দূরত্বের বুঝি অবসান সোনারগাঁয়ের মাটিতেই শেষ হয়েছে।

কিন্তু না, একমঞ্চে উপবিষ্ট থাকলেও শুধুমাত্র আব্দুল হাইয়ের সাথে মান রক্ষার্থে কুশলাদী বিনিময় করেন বাদল। যার ফলে তৃণমূল নেতাকর্মীরাও তাদের সম্পর্কের বৈরীতা প্রত্যক্ষ করার সুযোগ পেয়েছেন বলে জানান, সোনারগাঁ থানা আওয়ামীলীগের একাধিক শীর্ষ নেতা।

ফলে এক মঞ্চে বসলেও নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাইয়ের সাথে সাধারন সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদলের মধ্যকার সৃষ্ট দূরত্ব বিরাজমান রয়ে যায়।

তবে বুধবার (৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় শহরের চাষাড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ‘বঙ্গবন্ধুর ভাষণ ইউনেস্কোর স্বীকৃতি’ পাওয়ায় জেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আব্দুল হাই ও বাদলকে পাশাপাশি দাঁড়িয়ে একমঞ্চে বক্তব্য দিতে দেখে অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত আওয়ামীলীগের একাধিক নেতা মন্তব্য করেন, অবশেষে আব্দুল হাইয়ের সাথে ভিপি বাদলের হয়তো বা দূরত্বের অবসান ঘটেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here