নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: অবশেষে বেড়িয়ে আসলো থলের বিড়াল। কোনটি আসল, কোনটি নকল। সম্প্রতি রাহুল চৌধুরী শামীম নিজেকে বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি দাবী করে অর্থের বিনিময়ে নারায়ণঞ্জ জেলার ৩ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি শুধুমাত্র নিজের স্বাক্ষর দিয়ে ঘোষনা দেয়। কিন্তু পরবর্তীতে একদিনের ব্যবধানে আরেকটি ৬ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের স্বাক্ষর দিয়ে ঘোষণা করার পর তোলপাড় শুরু হলে বেড়িয়ে আসে থলের বেড়াল।

বৃহস্পতিবার এই প্রতিবেদকের হাতে আসে বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির প্যাডে সংগঠনের সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন শিশির স্বাক্ষরিত একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তিনি উল্লেখ করেন, এই মর্মে সকলের জ্ঞাতার্থে জানানো যাচ্ছে যে, বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মলীগের নাম বিক্রি করে কতিপয় ব্যাক্তি বিশেষ নিজেদেরকে সভাপতি, সাধারন সম্পাদক দাবী করে সংগঠনের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করে চলেছে। শুধু তাই নয়, এই ব্যাক্তিবর্গের বিরুদ্ধে কমিটি গঠনের নাম করে বিভিন্ন জেলা/উপজেলায় মানুষের কাছ থেকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রকৃতপক্ষে তাদের বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মলীগের সাথে কোন সম্পৃক্ততা নেই। তারপরেও যদি কেউ নিজেদেরকে সংগঠনের সভাপতি/সাধারন সম্পাদক দাবী করে অবৈধভাবে কমিটি গঠনের চেষ্টা করে সেক্ষেত্রে প্রচলিত আইন অনুযায়ী ও গঠনতন্ত্র মোতকাবেক তাদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

উল্লেখিত, মোটামুটি নিশ্চিত যে বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ জেলা বা উপজেলায় বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মলীগের কোন বৈধ জেলা বা উপজেলা কমিটি নেই।

তবে কেন্দ্রীয় একটি বিশ্বস্ত সূত্র নিশ্চিত করেছে কিছুদিনের মধ্যেই বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি বৈধভাবে নারায়ণগঞ্জ জেলা/উপজেলা কমিটিগুলো গঠন করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here