নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: সরকারী তোলারাম কলেজের নবীন শিক্ষার্থীদের নিজ জীবনের গল্প শোনালেন প্রাক্তন ছাত্র ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ আলহাজ¦ একেএম শামীম ওসমান।
মঙ্গলবার (১৭ অক্টোবর) সকালে সরকারী তোলারাম কলেজেন নবীন বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যকালে তিনি এই গল্প শোনান।

শামীম ওসমান বলেন, ‘আমি সোনার চামুচ মুখে নিয়ে জন্মেছিলাম, এটা সত্যা। কিন্তু জীবনে অনেক কষ্ট করতে হয়েছে আমাকে। ১৯৭৫ থেকে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত আমার বাবা জেলে ছিলেন। বড় ভাই নাসিম ওসমানকে ধরে নিয়ে গিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীরা। ওই ৬ বছর আমি ১ বেলা খেলে আরেক বেলা খেতে পারি নি। তখন খুব প্রতাপশালী ছাত্র নেতা ছিলাম। আমাদের কথায় তখন ৫ মিনিটে ২০ থেকে ২৫ হাজার ছাত্র রাস্তায় নামতো। তখন এই কলেজে ১৯ জন রাজাকারকে প্রবেশ করতে দেই নি। জিয়াউর রহমানকে এই নারায়ণগঞ্জ দিয়ে যাওয়ার সময় ৭টা ছেলে আটকে দিয়ে ছিলাম। কিন্তু আমার পকেটে কোন টাকা ছিলনা।

শিক্ষা জীবনের করুণ কাহিনী তুলে তিনি বলেন, ‘আমি ইন্টারমিডিয়েটের ছাত্র। আমার সাথের সকলে ফরম ফিলাপ করে ফেলেছে। আমি তখন করতে পারিনি। কিন্তু আমার সৌভাগ্য তখনকার শিক্ষকরা ২০ হাজার শিক্ষার্থীর খবর রাখতেন। আমার শ্রদ্ধেয় শিক্ষক বাবু জীবন কান্তী চক্রবত্তী স্যার আমাকে কলেজের রোমে ডেকে পাঠালেন। স্যার বলেছিলেন কেন আমি এখনো ফরম পুরণ করিনি।

ওই দিকে বড় ভাই সেলিম ওসমান আমার ফরম পুরণের ৯‘শ টাকা হাওলাদের জন্য ঘুরে বেড়াচ্ছেন। কিন্তু কেউ টাকা দিচ্ছিল না। তাই বড় ভাইও আসছিল না। তাই আমি বল্লাম পরে করবো। কিন্তু স্যার আমাকে তখনই সই দিতে বল্লেন।

সেদিন যদি আমার স্যার ফরম পুরন না করাতেন। তাহলে হয়তো ওই বছর আমার পরীক্ষা দেওয়া হতো না।’

শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন দাবীর প্রেক্ষিতে শামীম ওসমান আরো বলেন, ‘তোমাদের সকলের সমস্যা হয়তো আমি সমাধান করতে পারবো না। তবে যে কোন সমস্যা নিয়ে এসো আমি চেষ্টা করবো সমাধান করতে। টাকার জন্য কারো পড়ালেখা বন্ধ হবে না। এর বিনিময়ে তোমরা শুধু মা বাবার খেদমত করবে, তাদের কথা মতো চলবে।’

সরকারী তোলারাম কলেজের অধ্যক্ষ মধুমিতা চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে ও সরকারী তোলারাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান সালমা ওসমান লিপি।

অন্যান্যদের মাঝে আরো উপস্থিত ছিলেন, মহানগর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি কমান্ডার গোপীনাথ দাস, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, মহানগর স্বেচ্ছা সেবকলীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা মহিলা লীগের সভাপতি ড. শিরিন বেগম, মহানগর মহিলা লীগের সভাপতি ইসরাত জাহান খান স্মৃতি, তোলারাম কলেজ শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক জীবন কৃষ্ণ মোদক, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান সুজন প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here