নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি: নাসিক ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহজালাল বাদলের বিরুদ্ধে অর্ধশতাধিক দোকান ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার (৯ এপ্রিল) সকালে ভাংচুরের ঘটনাস্থ পরিদর্শন করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নারায়গঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভি।

রোববার সকালে নাসিক ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহজালাল বাদলের নেতৃত্বে তার ক্যাডার রাজু, নোয়াকইল্লা পলাশ, নবি, রিপন, লম্বু মুছা, রনি, শাহ আলম, মুসলিম ও শিমরাইল মোড়ের শীর্ষ চাঁদাবাজ ইব্রাহিম এ ভাংচুর চালায়। এসময় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের উপ-সহকারী প্রকৌশলী সুমন দেবনাথও উপস্থিত ছিলেন।

এসময় মেয়র আইভি বলেন, আমি সামনের ৪টি দোকান ভেঙ্গে রাস্তাটি সোজা করতে বলেছিলাম প্রকৌশলীকে। কিন্তু এত দোকান ভাংতে বলিনি। এ বিষয়ে কথা বলার জন্য আগামীকাল সকাল ১১টায় নগর ভবনে ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহজালাল বাদল ও প্রকৌশলী সুমন দেবনাথকে উপস্থিত থাকার জন্য নির্দেশ দেন। এসময় ভূক্তভোগী দোকান মালিক ও স্থানীয় মুরুব্বীদের নগর ভবনে উপস্থিত থাকার অনুরোধ করেন তিনি। ।

রোববার সকালে কাউন্সিলর শাহজালাল বাদলের নেতৃত্বে রাস্তা প্রসস্থ করণের নামে নাসিক সিদ্ধিরগঞ্জের ৩নং ওয়ার্ড নিমাইকাশারী বাজার এলাকার মোঃ জয়নাল আবেদীন, মোঃ মামুন মিয়া, মোঃ ইব্রাহিম, সুন্দর আলী, হাজী জাহাঙ্গীর হোসেন, মোঃ আলমগীর হোসেন, ডাক্তার মান্নান, নুরুল ইসলাম আপন, জসিম উদ্দিন ও প্রকৌশলী সেলিম মিয়ার অর্ধশতাধিক পাকা দোকান ভাংচুর করে। পরে বিষয়টি এলাকাবাসী নারায়গঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভিকে অবহিত করেন। পরে তিনি সোমবার সকালে ভাংচুরের ঘটনাস্থ পরিদর্শন করে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এদিকে ভাংচুরের ঘটনা সইতে না পেলে এক দোকান মালিক হাজী জাহাঙ্গীর হোসেন অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে সিদ্ধিরগঞ্জের প্রোএ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি বর্তমানে ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের উপ-সহকারী প্রকৌশলী সুমন দেবনাথ বলেন, এ বিষয়নি এখন কিছু বলতে পারবো।

এ বিষয়ে নাসিক বক্তব্যের জন্য নাসিক ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহজালাল বাদলের মুঠো ফোন কল করা
হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here