নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের রোগীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য মতে, আক্রান্ত হয়েছে ১২৫ জন যা নারায়ণগঞ্জে একদিনে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে। মূলত শপিংমলে ভীড়, সড়কে যানজট, গার্মেন্টস্সহ সকল প্রতিষ্ঠান চালু হয়ে যাওয়ায় নারায়ণগঞ্জের পরিস্থিতি ভয়াবহ হচ্ছে।

যার প্রমাণ মঙ্গলবার আক্রান্তের সংখ্যা দেখে। মূলত সড়কে যানজন, শপিংমলে ভীড়, ফুটপাতে হকারসহ নারায়ণগঞ্জে সব কিছুই এখন স্বাভাবিক। করোনার হটস্পট নারায়ণগঞ্জ জেলাতে স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই চলছে সকল প্রকার কার্যক্রম। এ যেন নারায়ণগঞ্জবাসী মৃত্যুর সাথে কোলাকোলি করতে পথে নেমেছে। প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা হুঙ্কার দিয়েই শান্ত। বরং চির চেনা রূপে ফিরছে নারয়ণগঞ্জ। ৫ মিনিটের পথ যানজটের কারণে আধা ঘন্টা এমনকি এক ঘন্টাও সময় লাগছে। প্রতিবছরের ন্যায় এবারই জমে উঠেছে ঈদের বাজার। সাধারণ মানুষ ফিরেছেন স্বাভাবিক জীবনে। তাদের এমন স্বাভাবিক আচারণ দেখে মনে হবে নারায়ণগঞ্জে করোনার প্রভাব পড়েনি। বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত রয়েছেন স্বাস্থ্য বিশষজ্ঞরা। তাদের মতে, এমন পরিস্থিতি চলতে থাকলে নারায়ণগঞ্জে অবস্থা হবে আরো ভয়াবহ। যা সামাল দিতে অনেক বেগ পেতে হবে প্রশাসনকে। আর প্রশাসনের নমনীয়তার কারণেই নারায়ণগঞ্জ স্বাভাবিক অবস্থানে ফিরে এসেছে। অথচ করোনা ভাইরাসের প্রভাব বেড়ে যাওয়ায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রয়োজনীয় কাজে বাহিরে বের হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। কিন্তু নারায়ণঞ্জে প্রশাসনের নীরবতায় কারণে অকারণে ঘর থেকে বাহিরে আসছেন সাধারণ মানুষ।

জানাগেছে, করোনা ভাইরাস বাংলাদেশে প্রথম শনাক্ত তিন জনের মধ্যে নারায়ণগঞ্জেরই ২জন ছিলেন। এর পর থেকে এ জেলায় দিনে দিনে আক্রান্তের সংখ্যা শুধু বাড়ে চলেছে। কমার কোন লক্ষন নেই। বরং যত বেশি বেশি নমুন পরীক্ষা করা যাচ্ছে, ততই নারায়ণগঞ্জের চিত্র পরিস্কার হচ্ছে। মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য মতে, জেলায় নতুন ভাবে আক্রান্ত হয়েছে ১২৫ জন, মোট আক্রান্ত ১৭৮৩ জন। মোট মৃত্যু ৬৪ জনের। নতুন ২২ জন সহ মোট সুস্থ হয়েছেন ৪৯২জন। নারায়ণগঞ্জে গত ২৪ঘন্টায় আক্রান্তের রেকর্ড করে হয়েছে। এ সময়ে নতুন করে ১২৫জন আক্রান্ত হয়েছে। যা একদিনে আক্রান্তের সর্বোচ্চ রেকর্ড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here