নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: ক্ষমতাসীন দলের কোন এমপি আদৌ মন্ত্রীত্ব না পেলেও সদ্য উপমন্ত্রীর পদমর্যাদা পেয়েছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন মেয়র ও নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ডা: সেলিনা হায়াত আইভী।
কিন্তু সরকারের মন্ত্রীত্ব না হলেও প্রথমবারের মত ক্ষমতাসীন দলের কোন জনপ্রতিনিধি উপমন্ত্রীর পদমর্যাদায় সম্মানিত হওয়া সত্ত্বেও নারায়ণগঞ্জ জেলা বা মহানগর আওয়ামীলীগে তেমন কোন উচ্ছাস পরিলক্ষিত হয়নি।

গত ৭ নভেম্বর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রাষ্ট্রপতির নির্বাহী আদেশের প্রেক্ষিতে মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের সচিব নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভীকে উপমন্ত্রীর পদমর্যাদা প্রদানের প্রজ্ঞাপন জারি করার পর সাধারন জনগণসহ ক্ষমতাসীন দলের আইভী অনুসারী নেতৃবৃন্দরা তাকে শুভেচ্ছা জানালেও নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে কোন শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দকে শুভেচ্ছা বা অভিনন্দন জানাতে দেখা যায়নি।

কিন্তু কেন? তবে কি আইভীর উপমন্ত্রীর পদমর্যাদায় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা আনন্দিত, উচ্ছসিত কিংবা গর্বিত হতে পারেন নি- এব্যাপারে জানতে চাইলে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে জানান, ‘আমরা অবশ্যই আনন্দিত। আমি ব্যাক্তিগত ভাবে আইভীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছি।’

আর মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ¦ আনোয়ার হোসেনের মুঠোফোন অন্যজন রিসিভ করে আনোয়ার সাহেব ব্যস্ত আছেন বলে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।

জানাগেছে, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের জন্মস্থান হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ। কিন্তু স্বাধীনতা যুদ্ধের পর এ যাবতকাল পর্যন্ত আওয়ামীলীগ যতবারই রাষ্ট্র ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়েছে, ততবারই অবমূল্যায়িত ছিল এই নারায়ণগঞ্জ। আদৌ পর্যন্ত এই জেলার কোন এমপিকে আওয়ামীলীগ সরকারের মন্ত্রী কিংবা প্রতিমন্ত্রী পদে অধিষ্ঠিত করা হয়নি। যার ফলে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দদের মাঝেও এক ধরনের ক্ষোভ ছিল।

তবে আওয়ামীলীগের শাসনামলে জেলায় কেউ মন্ত্রীত্ব না পেলেও শেষতক নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভীকে উপমন্ত্রীর (সর্বাধিক নিম্নপদস্থ মন্ত্রী) পদমর্যাদা দিয়েছে বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার।

আইভী হচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের টানা দ্বিতীয় মেয়াদে নির্বাচিত প্রথম নারী মেয়র। যিনি গত বছর ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়নে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দীতা করেছিলেন। বিএনপির মেয়র প্রার্থী এড. সাখাওয়াত হোসেন খানকে বিপুল ভোটে পরাজিত করে নির্বাচিত হয়েছিলেন মেয়র।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here