নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: বিএনপি চেয়ারপার্সণ বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা এড. তৈমূর আলম খন্দকার আওয়ামীলীগের এজেন্ট হিসেবে ঘরে বসে নারায়ণগঞ্জের জাতীয়তাবাদী আইনজীবীদের ঐক্য বিনষ্ট করার ষড়যন্ত্র করছেন বলে অভিযোগ করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের নেতাকর্মীরা। এবং আসন্ন নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির নির্বাচন ও জাতীয় নির্বাচনের আগে এসকল ষড়যন্ত্র পরিহার করে জাতীয়তাবাদী শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য তৈমূরের প্রতি আহবান জানিয়েছেন তারা।

নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির আসন্ন বার্ষিক সাধারণ সভা উপলক্ষে জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের উদ্যোগে আয়োজিত প্রস্তুতি সভায় এসব অভিযোগ করেন ফোরাম নেতারা।

মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) দুপুরে আইনজীবী সমিতি ভবনের চতুর্থ তলায় এ সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি এড. সরকার হুমায়ুন কবীর বলেন, এড. তৈমূর আলম পদ পদবী হারিয়ে পাগল হয়ে গেছেন। এখন সেই পাগল নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী ফোরামের ঘাড়ে ভর করেছে। তিনি নেপথ্যে থেকে গুটি কয়েক আইনজীবীদের দিয়ে ঘর ভাঙ্গার খেলা শুরু করেছেন। কিন্তু আমরা তাকে সাবধান করে দিয়ে বলতে চাই, সময় থাকতে ভালো হয়ে যান। তা নাহলে নারায়ণগঞ্জের আইনজীবীদের রোষানল থেকে কেউ আপনাকে বাঁচাতে পারবে না।

জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সহ সভাপতি এড. জাকির হোসেন বলেন, আমরা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের নেতৃত্বে বেশ ভালোভাবেই এগুচ্ছিলাম। কিন্তু আমাদেরই এক সিনিয়র আইনজীবী আওয়ামীলীগের সাথে আঁতাত করে ফোরামের পাল্টা কমিটি দিয়েছে। আমি ধিক্কার জানাই তাকে, আমাদের ঐক্য বিনষ্ট করার ষড়যন্ত্রের কারনে। তবে এই চার পাঁচটা কুলাঙ্গারের আমাদের প্রয়োজন নেই। আর সে সকল কুলাঙ্গারগুলোকে বলবো, সাবধান হয়ে যান। কোন ব্যক্তির রাজনীতি করবেন না, শহীদ জিয়ার আদর্শের রাজনীতি করুন।


নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, নারায়ণগঞ্জ আইনজীবীদের মধ্যে সাখাওয়াতের কোন গ্রুপ নেই, সবাই শহীদ জিয়ার আদর্শে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার রাজনীতি করি। নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের কমিটিকে সুপারিশ করেছেন বিএনপি’র আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. সানাউল্লাহ মিয়া। আরো সুপারিশ করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি’র সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান ও মহানগর বিএনপি’র সভাপতি এড. আবুল কালাম আর অনুমোদন দিয়েছেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ব্যারিষ্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। তাই এই কমিটিই নারায়ণগঞ্জে ফোমামের একমাত্র কমিটি। যারা পাল্টা কমিটি গঠন করতে চান, তাদের উদ্দেশ্যে বলবো, কেন্দ্রে থেকে এই কমিটি ভেঙ্গে নতুন কমিটির অনুমোদন নিয়ে আসুন, আমরা সবাই সে কমিটিকে মেনে নেবো। কিন্তু কারো ঘওে বসে দুই চারজন মিলে কমিটি করলে তা মেনে নেয়া হবে না। আজ যারা জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের বিরোধীতা করছেন, তারা নাজমুল হুদার প্রেতাত্মা।

বিএনপি চেয়ারপার্সণ বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা এড. তৈমূর আলম খন্দকারকে উদ্দেশ্যে জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের যুগ্ম সম্পাদক এড. এইচএম আনোয়ার প্রধান বলেন, আপনি হাইকোর্টে আছেন, সেখানেই থাকেন। নারায়ণগঞ্জের আইনজীবীদের মাঝে বিভক্তি সৃষ্টির চেষ্টা করবেন না। আপনি জীবনে অনেক কিছু পেয়েছেন। বিএনপি’র পাঁচ বছরে খেয়ে দেয়ে অনেক হৃষ্ট পুষ্ট হয়েছেন, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হয়েছেন, এখন আপনার আর কোন খায়েশ বাকি আছে, বলেন আমরা তা পূরণ করার চেষ্টা করি। আপনি নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি হতে পারেননি, এবার আপনি চাইলে আমরা আপনার সে খায়েশও পূরণ করার চেষ্টা করবো। তবুও পিছন থেকে আঘাত করবেন না। আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বাচনের মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতিতে শহীদ জিয়া ও দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার ছবি লাগাতে চাই। দয়া কওে আর বিভেদেও সৃষ্টি করবেন না। আপনি অতীতে যে ধরনের ধৃষ্টতা দেখিয়েছেন, তা ভুলে যান। আমাদেরকে এমন কোন সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য করবেন না, যাতে করে আপনার এতো দিনের সব অর্জণ ভুলন্ঠিত হয়ে যায়।

প্রস্তুতি সভায় জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের নেতাকর্মীরা আসন্ন বার নির্বাচনে আইনজীবীদের দিয়ে নির্বাচন কমিশন না বানানোর সুপারিশ করেন এবং সেই সাথে নির্বাচনের দিন সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বাচন টেম্পারিং ঠেকানোর জন্য আহবান জানান।

প্রস্তুতি সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সহ সভাপতি এড. খন্দকার আজিজুল হক হান্টু, এড. মশিউর রহমান শাহীন, এড. রকিবুল হাসান শিমুল, সাধারণ সম্পাদক এড. খোরশেদ আলম মোল্লা, যুগ্ম সম্পাদক এড. আবুল কালাম আজাদ জাকিরসহ ফোরামের সিনিয়র জুনিয়র আইনজীবীবৃন্দ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here