নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ সরকারী আইইটি উচ্চ বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র আদনান সারোয়ারের হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত একই স্কুলের চার শিক্ষার্থীর বহিস্কার চেয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবর নিহত আদনানের পিতা সারোয়ার মুজাহিদ মুকুলের করা আবেদনের প্রেক্ষিতে চার শিক্ষার্থীকে বহিস্কার করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ ।

বৃহস্পতিবার (২৬ এপ্রিল) তাঁর এই আবেদনের প্রেক্ষিতে ঐদিন বিকেলেই তাদের বহিস্কার করা হয়েছে বলে নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে নিশ্চিত করেছেন সারোয়ার মুজাহিদ মুকুল।

আবেদনে সারোয়ার মুজাহিদ মুকুল উল্লেখ করেছিলেন, গত ২৫ এপ্রিল সকাল দশটায় নারায়ণগঞ্জ সরকারী আইইটি উচ্চ বিদ্যালয়ের চার শিক্ষার্থীসহ আরো কয়েকজন শিক্ষার্থ আমার ছেলেকে বাড়ি থেকে স্কুলের কথা বলে নিয়ে যায়। এ চারজন হলো শুভ আহমেদ, সিফাত, রায়হান ও ইশতিয়াক। আমার ছেলে আদনান সারোয়ার নারায়ণগঞ্জ সরকারী আইইটি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর একজন মেধাবী ছাত্র ছিলো। আমার ছেলেকে উক্ত চারজন শিক্ষার্থী নবীগঞ্জ টি হোসেন গার্ডেনে নিয়ে ব্যাপক মারধর করে। তারপর নবীগঞ্জ কাইকারটেক ব্রীজের নীচে নদীতে ফেলে দেয়। তারপর উক্ত চারজন শিক্ষার্থী আমার ছেলেকে রেখে বাড়িতে চলে আসে। আমরা খবর পেয়ে সেখানে গিয়ে ব্রহ্মপুত্র নদী থেকে আমার ছেলেকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করি। তাছাড়া এ চারজন শিক্ষার্থী নারায়ণগঞ্জ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধাণ শিক্ষক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) তাদের সামনে মারধরের কথা স্বীকার করে। যা লিখিতভাবে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) ও সহকারী প্রধাণ শিক্ষকের নিকট লিখিত জবানবন্দি দেয়।

নিহত আদনান সারোয়ারের পিতা সারোয়ার মুজাহিদ মুকুল জেলা প্রশাসকের নিকট আকুল আবেদন জানিয়ে বলেন, আমার ছেলের মৃত্যুর জন্য উক্ত চারজন শিক্ষার্থীকে সুষ্ঠ শিক্ষার স্বার্থে এবং এ ধরনের অঘটন পুনরায় কোন স্কুলে যেনো না ঘটে সে জন্য চিরতরে বহিস্কার করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here