নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, সোনারগাঁ প্রতিনিধি: সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, শীঘ্রই সারা বাংলাদেশে গ্রামীণ কারুশিল্পীদের বাছাই করে তালিকা প্রণয়ন করা হবে। বর্তমানে কারুশিল্পীরা কারুপণ্য উৎপাদন করতে গিয়ে লোকসান গুনতে হচ্ছে। তাই তারা অন্য পেশায় চলে যাচ্ছেন। দক্ষ কারুশিল্পীদেরকে ভাতা প্রদানের মাধ্যমে এ শিল্পকে টিকিয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

রবিবার (১৪ জানুয়ারী) সকালে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন চত্বরে মাসব্যাপী লোক-কারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যে বাংলাদেশের শীতল পাটি, জামদানি শাড়ি, বাউল গান, মঙ্গল শোভাযাত্রা স্থান পেয়েছে। এটা আমাদের গর্ব। আমরা কারুশিল্পের প্রসারে কাজ করে যাচ্ছি। এছাড়া সোনারগাঁওয়ের ঐতিহাসিক পানাম নগরীকে অতিদ্রুতই আধুনিকায়ন করা হবে। তাছাড়া পানাম নগরীর ৫২টি ঐতিহাসিক ভবন সংস্কার করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আশা করি জাদুঘরের বড় সরদার বাড়ির মতো পানাম সিটি সংস্কারের মাধ্যমে আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে। মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর মাসব্যাপী লোক ও কারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসব উদ্বোধন করার পর মেলার বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখেন এবং মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের পরিচালক কবি রবীন্দ্র গোপের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহিনূর ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট শামছুল ইসলাম ভূঁইয়া, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম ও নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মতিয়ার রহমান। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নারায়নগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান মাসুম, এডভোকেট নূর জাহান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার সোহেল রানা, ডেপুটি কমান্ডার ওসমান গনি, ফাউন্ডেশনের উপ পরিচালক রবিউল ইসলাম প্রমূখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here