নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: দলীয় চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দূর্নীতি মামলার ঘোষিতব্য রায় বিরুদ্ধে যাওয়ার আশংকায় এবং সহায়ক সরকারের অধীনে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবীতে আন্দোলনের প্রস্তুতি নিচ্ছে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপি।
দলটির শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দদের সাথে আলাপকালে জানাগেছে, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ঘোষিতব্য রায় বিপক্ষেই যাবে বলে সরকারের মন্ত্রীদের বক্তব্যে ধারন করছেন তারা। তাই রায় বিপক্ষে গেলেই যেন সাথে সাথে রাজপথে আন্দোলনের জন্য নামতে পারে দলীয় নেতাকর্মীরা, সেই লক্ষ্যেই প্রস্তুতি নিতে তৃণমূল পর্যায়ে নির্দেশনা দিয়েছেন তারা। এছাড়াও আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করেও সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে আন্দোলনের প্রস্তুত থাকার নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে।

এব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধরণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ বলেন, ‘খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগ সম্পূর্ন মিথ্যা, বানোয়াট ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রনীত। কিন্তু সম্প্রতি সরকারের মন্ত্রীদের বক্তব্যে মনে হচ্ছে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারী ঘোষিতব্য রায় বেগম জিয়ার বিপক্ষে যাবে। আর যদি সত্যিই মিথ্যা মামলায় বিপক্ষে রায় দেয়া হলে কেউই মেনে নিবেনা। এমনকি দেশের জনগনও মেনে নিবেনা।’

তিনি আরও বলেন, ‘খালেদা জিয়া এ দেশের তিনবার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। সুতরাং রায় বিপক্ষে গেলে শুধু বিএনপি না, দেশের সাধারণ জনগনও রাজপথে নেমে আসবে। আর সেই আন্দোলনের প্রস্তুতি নিতেই দলীয় নেতাকর্মীদেরও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।’
নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল বলেন, ‘খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আদালত কি রায় দিবেন তা আওয়ামীলীগের শীর্ষস্থানীয় নেতা বা মন্ত্রীদের বক্তব্যে আগেই প্রকাশ পাচ্ছে। কিন্তু বিচারের নামে যদি প্রহসন করা হয় তাহলে জিয়ার সৈনিকেরা ঘরে বসে থাকবে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘ইতিমধ্যেই বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিষ্টার মওদুদ আহম্মেদ নারায়ণগঞ্জে মহানগর বিএনপির কর্মী সম্মেলনে এসে দলীয় নেতাকর্মীদের আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার পাশাপাশি ঐক্যবদ্ধ ভাবে আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ দিয়ে গেছেন। আমরা সেই ভাবেই নেতাকর্মীদের নিয়ে আন্দোলনের প্রস্তুতি নিচ্ছি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here