নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: কয়েকদিন যাবত দিনের বেলায় প্রচন্ড গরমে জনজীবন উষ্ঠাগত হয়ে উঠলেও এখন আবার মধ্যরাতে ‘লোডশেডিংয়ের’ ফলে রাতের ঘুম হারাম হওয়ার উপক্রম হয়েছে নগরবাসীর। দিনের কর্মক্ষনের পাশাপাশি ক্লান্ত নগরবাসী রাতে শান্তির ঘুমে আচ্ছন্ন থাকে ঠিক তখনই প্রায় ঘন্টাব্যাপী লোডশেডিংয়ের ফলে জেগে উঠে কাউকে হাতপাখা কাউকে জানালার পাশে বসে ীতল পরশ নিতে হচ্ছে।

বিশেষ করে শনিবার ও রবিবার দেখাগেছে, নিতাইগঞ্জ, শীতলক্ষ্যা, ডাইলপট্টী, টানবাজার, ডিআইটি, কালীরবাজার, চাষাড়াসহ নগরীর অধিকাংশ এলাকায় দিনের পাশাপাশি রাতের বেলায়ও একাধিকবার লোডশেডিংয়ের কারনে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হয়েছে উক্ত এলাকার বাসিন্দাদের।

শহরের শীতলক্ষ্যা এলাকার বাসিন্দা স্বন্দীপ সাহা জানান, ‘সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টায় প্রচন্ড গরমে হঠাৎ ঘুম ভেঙ্গে যায় তার। এরপর উঠে দেখেন বিদ্যুৎ নেই। তখন ক্ষুব্ধ হয়ে ডিপিডিসি কার্যালয়ে ফোন করলে জানতে পারেন একঘন্টার জন্য লোডশেডিং দিয়েছে।’

‘কিন্তু দিনের বেলায় দেয়া সত্ত্বেও মধ্যরাতেও লোডশেডিং কেন- তখন এমন প্রশ্নের সঠিক উত্তর ডিপিডিসি কন্ট্রোল রুমে দায়িত্বে থাকা জনৈক কর্মকর্তা দিতে পারেন নি বলে জানান স্বন্দীপ সাহা।’

শহরের চাষাড়া এলাকার বাসিন্দা একটি প্রাইভেট কোম্পানীর এক্সিকিউটিভ অফিসার আরাফাত আলামিন জানান, ‘ইদানীং দিনের বেলায় লোডশেডিংয়ের কারনে দৈনন্দিন কাজে ব্যাঘাত সৃষ্টি হচ্ছে। অফিসে বিদ্যুতের বিকল্প হিসেবে আইপিএস ব্যবহার করা হলেও কম্পিউটার চালাতে না পারায় নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। কিন্তু সরকার বিদ্যুৎ উৎপাদনে কয়েকবার রেকর্ড করেছে দাবী করে মুখে ফেনা তুললেও বাস্তবে জনগণ লোডশেডিংয়ের রেকর্ড দেখতে পাচ্ছে।’

তাই তিনি কমপক্ষে রাতের বেলায় একটু শান্তিতে ঘুমানোর ব্যবস্থা করে দিতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে ডিপিডিসি কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন।

সোমবার (১৭ জুলাই) দিনের বেলায় সরেজমিন নগরীর বেশ কয়েকটি এলাকা ঘুরে জানাগেছে, কোন কোন এলাকায় কখনো আধা ঘন্টা, কখনো বা একঘন্টা পর বিদ্যুৎ আসলেও পরক্ষনেই আবার চলে যাচ্ছে। ফলে দিনের তীব্র গরমে ক্লান্ত মানুষ যখন বাসায় ফিরে ফ্যানের নীচে বসে গায়ে একটু হাওয়া লাগাতে গিয়ে যেমন উল্টো দূর্ভোগ পোহাচ্ছে, তেমনি কর্মক্ষেত্রে বসেও বিদ্যুতের অনবরত যাওয়া আসার কারনে ঠিক ভাবে কার্য সম্পাদন করতে পারছেন না বলে অভিযোগ করেন কর্মজীবিরা।

তবে বিদ্যুৎ উৎপাদন স্বাভাবিক থাকলেও কেন আবার হঠাৎ করে দিনেরাতে লোডশেডিংয়ের মাত্রা বেড়ে গেল- এমন প্রশ্নের জবাবে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী (ডিপিডিসি) নারায়ণগঞ্জ জোনের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ মাঈন উদ্দিন মুঠোফোন রিসিভ করেন নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here