নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: ঐতিহ্যবাহী নারায়ণগঞ্জের গুরুত্বপূর্ণ আসন আড়াইহাজারের রাজনীতি ক্রমেই জমে উঠতে শুরু করেছে। এখানকার বর্তমান এমপি নজরুল ইসলাম বাবু নিজ দলের ইকবাল পারভেজ ও বিএনপি’র নজরুল ইসলামের আজদের দ্বিমূখী চাপে বিরাট চ্যালেঞ্জের মুখে আছেন বলে জানা গেছে। আড়াইহাজারের আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা মনে করছেন, বাবুর জন্য ইকবাল পারভেজ হচ্ছেন ঘরের শত্রু বিভিষন, আর বাবুর মূল মাথা ব্যাথার কারন হয়ে দাড়িয়েছেন বিএনপি’র নজরুল ইসলাম আজাদ। নতুন প্রজন্মের কাছে অসম্ভব জনপ্রিয় আজদের জনপ্রিয়তায় নজরুল ইসলাম বাবু কোনঠাসা হয়ে উঠছেন বলে মনে করেন স্থানীয়রা।

সূত্র মতে, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক থাকা নজরুল ইসলাম বাবু ২০০৯ সালে আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করে এমপি নির্বাচিত হন। এরই ধারাবহিকতায় ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসন থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় এমপি নির্বাচিত হন। এমপি বাবুর গত প্রায় দশ বছরের আচরনে আড়াইহাজারের আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষ হতাশ হয়েছে। বাবুর বিরুদ্ধে ভূমি দস্যুতা, স্বজনপ্রিতি, দলীয় কোন্দল সৃষ্টিসহ একাধীক অভিযোগে লোকজন বাবুর কাছ থেকে সরে আসতে শুরু করে। এমনকি ওয়াজ মাহফিলে দাড়িয়ে মাওলানাদের সাথেও নজরুল ইসলাম বাবু দুর্ব্যবহার করেন। আর এ সুযোগে কেন্দ্রীয় যুবলীগের তথ্য ও যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক ও নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল পারভেজ বাবুর স্থানে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে শুরু করেন। বিভিন্ন সভা সমাবেশে তিনি আড়াইহাজার থেকে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে দাবী করেন। যদিও ইকবাল পারভেজের বিরুদ্ধেও দূর্নিতির অভিযোগ রয়েছে। ২০১৬ সালে দুর্নীতির মামলায় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) সাবেক সহকারী পরিচালক ও আওয়ামীলীগ নেতা ইকবাল পারভেজকে গ্রেপ্তার করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। রাজধানীর সেগুনবাগিচা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করার পরে তাকে রমনা থানা আটক রাখা হয়।

দুদক সূত্র জানায়, ২ কোটি ৬২ লাখ ৫০ হাজার ৬০২ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ইকবাল পারভেজ চৌধুরীকে গ্রেফতার করেন দুদক উপপরিচালক নাসির উদ্দিন। তার বিরুদ্ধে রাজধানীর ওয়ারী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। দুদকের অনুসন্ধানেই তাঁর প্রায় ৬০০ শতাংশ জমি কেনার প্রমাণ পাওয়া গেছে। দলিলমূল্য হিসেবে এসব সম্পদের দাম তিন কোটি টাকার বেশি। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের মতে বাস্তবে এসব জমির দাম আরো অনেক বেশি। আর তাই ইকবাল পারভেজ বাবুর মনোনয়ন প্রতিদ্বন্দি হলেও তাকে নিয়ে খুব একটা মাথা ঘামাচ্ছেন না বাবু। কারন বাবু-ইকবাল দুজনেই মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ। কিন্তু বাবুর ঘুম হারাম হয়ে গেছে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদের সাম্প্রতিক কর্মকান্ডে। আড়াইহাজারের বিএনপিসহ সাধারণ মানুষের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠা আজাদকে প্রতিহত করতেই উঠে পরে লেগেছেন সাংসদ নজরুল ইসলাম বাবু।

সূত্র জানায়, কেন্দ্রীয় বিএনপি’র সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ রাজপথে আন্দোলন সংগ্রামে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছেন। তাছাড়া সরকার বিরোধী আন্দোলন সংগ্রামে পুলিশের হামলা মামলায় নির্যাতিত নেতাকর্মীদের আর্থিক সহযোগিতাসহ আইনগত সকল সাহায্য প্রদান করছেন নজরুল ইসলাম আজাদ।

বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম আজাদের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও র‌্যালীর আয়োজন করা হয় গত বছরের ৬ সেপ্টেম্বর বুধবার। কিন্তু অনুষ্ঠান শুরুর আগে থেকেই সেখানে জড়ো হয়ে মিছিল করে আওয়ামীলীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এক পর্যায়ে সরকারী দলের নেতাকর্মীদের সাথে যোগ দিয়ে পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালিয়ে অনুষ্ঠান ভন্ডুল করে দেয়। আর নজরুল ইসলাম আজাদসহ ৮৭ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে নাশকতার মামলা দায়ের করে। আজাদ ৮৭ নেতাকর্মীর সবাইকে নিয়ে উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে আসেন। আর নি¤œ আদালতে আত্ম সমর্পণের পর কারাগারে পাঠানো ৭১ নেতাকর্মীর সকলের আইনী সহায়তার খরচ বহন করেন এবং আটককৃত নেতাকর্মীদের পরিবারের খোঁজ খবর নেন। তাছাড়া দলীয় চেয়ারপার্সণ বেগম খালেদা জিয়া সিলেট যাওয়ার প্রাক্কালে আড়াইহাজারে নেত্রীকে স্বাগত জানাতে গিয়ে পুলিশের হাতে আটক হন আজাদসহ অসঙখ্য নেতাকর্মী। আজাদ নিজের সহ সকল নেতাকর্মীর জামিনের ব্যবস্থা করেন এবং সকল নেতাকর্মীর পরিবারের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। আর তাই আড়াইহাজার বিএনপি’র স্বপ্ন পূরণের কান্ডারী হিসেবে আজাদকেই বেছে নিচ্ছেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা। সেই সাথে উদিয়মান এই নেতার দল মত নির্বিশেষে গড়ে উঠেছে বিশাল এক গ্রহনযোগ্যতা। যা ভাবিয়ে তুলেছে এ আসনের বর্তমান সাংসদ নজরুল ইসলাম বাবুকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here