নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: দরজায় কড়া নাড়ছে ঈদ। ত্যাগের মহিমায় খুশির ঈদ উদযাপনে সবচেয়ে বড় অনুষঙ্গ হলো শহর থেকে গ্রামের বাড়ী যাওয়া। পরিবার-পরিজনের সঙ্গে উৎসবে যোগ দেয়া মানেই যেন পূর্ণতা।
তাইতো ঈদের আগের শেষ কর্মদিবস বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই নারায়ণগঞ্জের সড়ক ও নৌপথে ছিল ঘরমুখো মানুষের উপচে পড়া ভীড়। কর্মঘন্টা শেষ হতেই যেন শেকড়ের টানে বাস, ট্রাক ও লঞ্চ টার্মিনালে হুমড়ি খেয়ে পরে দেশের নানা প্রান্তগামী মানুষেরা। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মালবাহী ট্রাকের উপড় বসে গন্তব্যে পৌঁছে প্রিয়জনের সাথে ঈদ আনন্দ উদযাপন করতে পারবেন সেই প্রত্যাশায় এই বিড়ম্বনাকে হাসিমুখেই মেনে নিয়েছেন তারা।

শুক্রবার (১ সেপ্টেম্বর) দেখাগেছে, ঈদের আগমূহুর্তেও প্রিয়জনের সান্নিধ্যে যেতে বাস, ট্রাক, লঞ্চে নারায়ণগঞ্জ ছেড়েছে ঘরমুখো যাত্রীরা। ভোর ৬টায় শহরের কেন্দ্রীয় লঞ্চ টার্মিনাল থেকে পটুয়াখালীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় বিশাল জাহাজ। এছাড়াও চাঁদপুর ও বরিশালের উদ্দেশ্যেও কয়েকটি লঞ্চ ছেড়ে যায়। যেগুলো সাধারন যাত্রীদের উপচে পড়া ভীড় ছিল।

চিটাগাং রোডে গিয়ে দেখাযায়, যে যেভাবে পেড়েছে, বাসের ভিতর সিট না থাকলেও ছাদের উপড় ঝুঁকি নিয়েই উঠে পড়েন যাত্রীরা। লক্ষ্য একটাই, ঈদের পূর্বে বাড়ী পৌঁছাতে হবেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here