নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: ঈদের আগে আগস্ট মাসের সম্পূর্ণ বেতন, ওভার টাইম ও পূর্ণ বোনাস পরিশোধের দাবিতে গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট গাবতলী-পুলিশ লাইন শাখার উদ্যোগে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা-৯টা মাসদাইর চৌধুরী কমপ্লেক্স এর সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট গাবতলী-পুলিশ লাইন শাখার সাইফুল ইসলাম শরীফের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম গোলক, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট গাবতলী-পুলিশ লাইন শাখার সহ-সভাপতি শহীদুল ইসলাম, মোঃ মমিন, সহ-সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন, খোরশেদ আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাইদ সাজু, বিসিক শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সাইদুর।

নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রতি বছর ঈদ আসলে গার্মেন্টসগুলোতে বেতন-বোনাস নিয়ে মালিকদের টালবাহানার কারণে শ্রমিক অসন্তোষ তৈরী হয়। দেখা যায় ঈদের একদিন আগে বেতন-বোনাস দেয়। কোথাও হাফ বোনাস দেয়া হলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রে নামমাত্র বকশীষ দেয়া হয়। অনেক ক্ষেত্রে তাও দেয়া হয় না। ফলে চরম অসন্তোষ তেরী হয়। প্রশাসন এখানে নির্বিকার থাকে। সরকারী প্রতিষ্ঠানে পূর্ণ বোনাস দেয়া হয়। কিন্তু গার্মেন্টসগুলোতে তা দেয়া হয় না। নেতৃবৃন্দ শ্রমিকদের পূর্ণ বোনাস দাবী করেন। ঈদের শেষ মূহুর্তে বেতন-বোনাস দিলে শ্রমিকরা এটা দিয়ে পরিবার পরিজনের জন্য কেনাকাটার সুযোগ থাকে না। তার দেশের বাড়িতে যাওয়ার জন্যই ব্যস্ত হয়ে যেতে হয়। অন্য কিছুর আর অবকাশ থাকে না। ঈদ-উল-আযহা যেহেতু সেপ্টেম্বর মাসের শুরুতে তাই আগস্ট সম্পূর্ণ মাসের বেতন শ্রমিকদের প্রাপ্য। নেতৃবৃন্দ সময় হাতে নিয়ে আগস্ট মাসের সম্পূর্ণ বেতন, ওভার টাইম ও পূর্ণ বোনাস পরিশোধের দাবী করেন এবং বলেন শ্রমিকদের দাবী অবহেলা করে মালিকরা যদি শ্রমিকদের বঞ্চিত করার জন্য কোন চালাকীর আশ্রয় নেয়, এতে যে কোন অনাকাংক্ষিত পরিস্থিতির জন্য মালিক এবং প্রশাসন দায়ী হবেন।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, শ্রম আইনের সকল শ্রমিক স্বার্থ বিরোধী ধারাসমূহ বাতিল করে গণতান্ত্রিক শ্রম আইন প্রণয়ন করতে হবে। শিল্পে স্থিতিশীলতা রক্ষা ও উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির জন্য ইপিজেড, গার্মেন্টসসহ সর্বত্র অবাধ ট্রেড ইউনিয়নের সুযোগ দিয়ে গনতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here