নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: রমজানের প্রথম ছুটির দিনে নারায়ণগঞ্জের মানুষের মনে ঝিলিক দিয়ে উঠছিল ঈদের আনন্দ। নগরীর শপিং মলগুলোতে ক্রেতার আনোগোনা মানুষের মনের সেই আনন্দের কথাই জানান দিচ্ছে। পুরোপুরি না হলেও নগরবাসীর ঈদ কেনাকাটা শুরু হয়ে গেছে তা বলা যায়। রমজানের প্রথম শুক্রবারে নারায়ণগঞ্জের মার্কেটগুলোতে ঘুরে দেখা গেছে জমে উঠতে শুরু করেছে ঈদের বেচাকেনা।

শুক্রবার (২ জুন) ছিল রমজানের প্রথম শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন। সরেজমিন ঘুরে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন অভিজাত শপিং মল, সুপারমার্কেট, বিপণিবিতানগুলোতে ক্রেতার ভিড় দেখা গেছে। দোকানীদের মন্তব্য, কেনাকাটার পালে সবে হাওয়া লেগেছে। ক্রেতাদের হাতে বেতন-বোনাসের টাকা এখনও আসেনি। বেতন-বোনাস পেলে ঈদবাজার আরও জমজমাট হয়ে উঠবে। তবে ঈদ উপলক্ষে যারা গ্রামের বাড়িতে যাবেন তারা প্রথম রমজান থেকেই তাদের পছন্দসই পোশাক কেনা শুরু করেছেন। নগরীর চাষাঢ়া সায়াম প্লাজা, শান্তনা মার্কেট, ফ্রেন্ডস মার্কেট, আল জয়নাল ট্রেড সেন্টার, সমবায় মার্কেট, ডিআইটির টোকিও প্লাজা, বর্ষণ সুপার মার্কেট, সোনার বাংলা মার্কেট, আজহার সুপার মার্কেট সরেজমিন ঘুরে ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। একইসঙ্গে জমে উঠেছে নগরীর চাষাঢ়ায় অবস্থিত সিটি কর্পোরেশন হকার্স মার্কেটসহ ফুটপাতের কেনাবেচাও।

শহরের শান্তনা মার্কেটের ডিফেন্সি ফ্যাশন হাউসের কর্ণধার আজিজুল হক শুক্রবারের বেচাকেনা সম্পর্কে নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, ক্রেতারা আসছেন কিন্তু বেশীরভাগই ঘুরে ঘুরে দেখছেন। শুক্রবার হওয়ায় ক্রেতার সংখ্যা একটু বেশী। তারা নতুন আইটেম খূঁজছেন এমন দাম যাচাই করছেন।

শহরের ডিআইটি সোনার বাংলা মার্কেটের শার্টপিস ও প্যান্ট পিস বিক্রির দোকানগুলোতে দেখা গেছে ভীর একটু বেশী। এই মার্কেটের সিটি ক্লথ ষ্টোরের সত্ত্বাধীকারী রবিন নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, আমাদের আইটেম হলো প্যান্ট ও শার্টপিস। এগুলো কিনে নিয়ে বানাতে দিতে হয়। ৫/১০ রোজার পর আর বানানোর অর্ডার নেওয়া হয় না। তাই রোজার প্রথম দিকেই আমাদের বেচাকেনা বেশী হয়। রোজার প্রথম ছুটির দিন হওয়ায় আজকে বিক্রি অনেক ভালো।   

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here