নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: স্বাধীন বাংলার স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক কালজয়ী ৭ মার্চের ভাষণের দিনটি স্মরণে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ আয়োজিত বিশাল জনসমাবেশে ব্যাপক শোডাউনের মাধ্যমে জনসমাগম ঘটিয়ে ক্ষমতাসীন দল নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগসহ আসন্ন সংসদ নির্বাচনে সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীরা উত্তীর্ণ হলেও এবার একই পরীক্ষার সম্মুখীন হতে যাচ্ছে বিরোধী দল নারায়ণগঞ্জ বিএনপি বলে মন্তব্য করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।
কারন হিসেবে তারা বলেন, রাজধানীর পাশ্ববর্তী জেলা হিসেবে প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দলের কাছেই বিশেষ গুরুত্ব বহন করে নারায়ণগঞ্জ। সেই কারনে, রাজধানীতে যেকোন ধরনের জনসমাবেশে ব্যাপক জনসমাগম ঘটানোর লক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জের নেতৃবৃন্দদের উপরই একটু বেশী ভরসা করে থাকে কেন্দ্র। তাই তো কেন্দ্রীয় যেকোন জনসমাবেশে সেই ভরসা অটুট রাখতে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী, সমর্থক নিয়ে যোগদান করে থাকেন নারায়ণগঞ্জের রাজনৈতিক দলগুলোর শীর্ষস্থানীয়রা।

ঠিক যেমনটা হয়েছে গত ৭ মার্চ। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক কালজয়ী ৭ মার্চের ভাষণের দিনটি স্মরণে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ আয়োজিত বিশাল জনসমাবেশে ব্যানার, ফেস্টুন, বাদ্য বাজনাসহ হাজার হাজার নেতাকর্মী, সমর্থক নিয়ে ব্যাপক শোডাউনের মাধ্যমে যোগদান করেছেন ক্ষমতাসীন দল নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দসহ সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।

তবে ক্ষমতাসীন দল হওয়ায় স্বত:স্ফূর্ত ভাবে ৭ মার্চের সমাবেশে ব্যাপক জনসমাগম ঘটাতে সফল হলেও দীর্ঘবছর ক্ষমতার বাইরে থাকায়, দলীয় কর্মসূচী পালনে নানা প্রতিবন্ধকতার শিকার নারায়ণগঞ্জ বিএনপি আগামী ১২ মার্চ কেন্দ্র আহূত সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের জনসমাবেশে ব্যাপক লোকসমাগম ঘটানোর পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবেন কিনা, সেটিই এখন দেখার বিষয় বলে মন্তব্য করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

কারন, অতীত অভিজ্ঞতার আলোকে দেখা গেছে, ঢাকায় বিএনপির বৃহৎ কোন কর্মসূচীতে যোগ দেয়ার প্রস্তুতি নিলেই যাত্রাপথে নানা প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হতে হয়েছে নারায়ণগঞ্জের নেতাকর্মীদের। তবে যে শুধু বিএনপির নেতাকর্মীরাই সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন তা নয়, রাজধানীতে বিএনপির অনুষ্ঠিত যেকোন জনসভার কারনে নারায়ণগঞ্জ-ঢাকা রুটে অঘোষিত ভাবে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সাধারন জনগণকেও নানা ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে।

তাই দলীয় চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তির দাবীতে আগামী ১২ মার্চ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল আহূত স্মরণকালের সর্ববৃহৎ জনসমাবেশ সফলের লক্ষ্যে ব্যাপক জনসমাগম ঘটানোর যে গুরু দায়িত্ব কেন্দ্র নারায়ণগঞ্জ বিএনপির শীর্ষস্থানীদের অর্পণ করেছেন, শেষতক সেই পরীক্ষায় নেতৃবৃন্দসহ আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনে ‘ধানের শীষ’ প্রত্যাশী নারায়ণগঞ্জ বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীরা উত্তীর্ণ হবেন কিনা তা ডিএমপির অনুমতি প্রদানের পরিপ্রেক্ষিতেই নিশ্চিত হওয়া যাবে বলে ধারনা রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের।

কেননা, রাজধানীর পাশর্^বর্তী জেলা হিসেবে রাজনীতির মাঠে নারায়ণগঞ্জ বিএনপিকে সবচেয়ে বেশী মূল্যায়ণ করে থাকে হাইকমান্ড। ফলে দলীয় কোন বৃহৎ কর্মসূচী তথা জনসমাবেশে ব্যাপক জনসমাগম ঘটানোর লক্ষ্যে হাইকমান্ড নারায়ণগঞ্জের শীর্ষস্থানীয়দের প্রতিই একটু বেশীই ভরসা করে থাকেন।

যেই কারনে, আগামী ১২ মার্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজিত বিশাল জনসমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির শীর্ষস্থানীয়দের সাথে প্রস্তুতি মূলক বৈঠক করেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

গত ৭ মার্চ সন্ধ্যায় বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে এই বৈঠক করেন নেতৃবৃন্দরা। সমাবেশ সফল করার জন্য বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসকে ঢাকা বিভাগের কো-অর্ডিনেটর করা হয়।

মহাসচিবের সাথে এদিন বৈঠকে নারায়ণগঞ্জের নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় বিএনপির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক বদরুজ্জামান খসরু, সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ, কার্যনির্বাহী সদস্য ও সাবেক সাংসদ আলহাজ¦ মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন আহাম্মেদ, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান, সিনিয়র সহ-সভাপতি এড. আবুল কালাম আজাদ বিশ^াস, সহ-সভাপতি ও সাবেক সাংসদ আলহাজ¦ আতাউর রহমান আঙ্গুর, আব্দুল হাই রাজু, মনিরুল ইসলাম রবি, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামাল, সিনিয়র সহ-সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল যুগ্ম অঅহ্বায়ক এড. আনোয়ার প্রধান।

আর নেত্রীর মুক্তির দাবীতে আয়োজিত জনসমাবেশে ব্যাপক জনসমাগম ঘটানোর প্রত্যাশা ব্যাক্ত করেছেন মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামাল।

তিনি নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, ‘দেশনেত্রীর কারামুক্তির দাবীতে আগামী ১২ মার্চ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপিকে ডিএমপি জনসমাবেশ করার অনুমতি প্রদানের পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জ থেকে সমাবেশস্থলে যাওয়ার পথে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ রেখে প্রতিবন্ধকতা এবং পুলিশ প্রশাসন কোনরূপ বাঁধার সৃষ্টি না করে, তাহলে ঐদিন স্মরণকালের সর্ববৃহৎ সমাবেশ জনসমুদ্রে পরিনত হবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here