নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভী আগেই ঘোষণা দিয়েছিলেন, যদি প্যানেল মেয়র নির্বাচনে কোন প্রার্থী টাকার ব্যবহার ঘটায় বা কোন কাউন্সিলরকে কেউ উপঢৌকন প্রদান করেন, তাহলে নির্বাচন বাতিল করা হবে।
কিন্তু মেয়রের এমন হুংকার সত্ত্বেও সেই অর্থের কাছেই পরাজিত হয়ে যান শামীম ওসমান সমর্থিত ১৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু ও আইভী সমর্থিত ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।

আর এই টাকার খেলায় প্রার্থী হিসেবে সংরক্ষিত আসনের ১৬, ১৭ ও ১৮ নং ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলর আফসানা আফরোজ বিভার বিজয় নিশ্চিত করে কিং মেকার হিসেবে খ্যাতি লাভ করেছেন সাবেক প্যানেল মেয়র-১ হাজী ওবায়েদুল্লাহ বলে মন্তব্য করেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

যেই কারনে নির্বাচনের পর নগর ভবনে হাস্যোজ্জ্বল মুখে আসেন নাসিক ১৬ নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর হাজী ওবায়েদুল্লাহ। এরপর নগর ভবন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় তিনি গর্ব করে বলেন, আমি যা করেছি মেয়রের সম্মতিতেই করেছি। বিভা প্যানেল মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় মেয়রের জন্য, সিটি কর্পোরেশনের জন্য ভাল হবে।’

জানাগেছে, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন প্যানেল মেয়র নির্বাচনে প্রথমে প্যানেল মেয়র-৩ পদে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দেন কাউন্সিলর আফসানা আফরোজ বিভা। কিন্তু পরবর্তীতে ওবায়েদুল্লার পরামর্শে প্যানেল মেয়র-১ পদে প্রার্থী হওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিভা।

এরপর বিভার বিজয় নিশ্চিতে প্যানেল মেয়র নির্বাচনে টাকার প্রচলন ঘটিয়ে যাওয়া সাবেক প্যানেল মেয়র হাজী ওবায়েদুল্লাহ বিভার পক্ষে বিভিন্ন কাউন্সিলরদের কাছে কখনো বিভাকে শামীম ওসমানের কারো কাছে আইভীর মনোনীনত প্রার্থী হিসেবে জাহির করে নানা উপঢৌকন দিয়ে ভোট চান।

যেই কারনে প্যানেল মেয়র-১ নির্বাচনে প্যানেল মেয়র হতে আরেক প্রার্থী আব্দুল করিম বাবুও অর্থের প্রভাব খাটিয়ে শেষতক আর টিকতে পারলো না। আর নীতিতে অটল তিনবারের নির্বাচিত কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ ধোপে টিকলো না।

তাই রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, অর্থের কারনেই জয় হয়েছে প্যানেল মেয়রের, শামীম ওসমান আর আইভী পন্থী দুজন প্যানেল মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় তারা হয়েছেন সমানে সমান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here