নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানাধীণ নবীগঞ্জ এলাকায় ওয়াসার পানির পাম্পটি দীর্ঘ প্রায় এক মাস আগে বিকল হয়ে যাওয়ায় চরম কষ্টে দিনযাপণ করছে এলাকাবাসী। পানির অভাবে প্রাত্যহিক কর্মকান্ড সারতে সীমাহীন দূর্ভোগ আর ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে প্রায় পাঁচ শতাধীক বাড়ির কয়েক হাজার অধিবাসীকে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও ওয়াসার কাছে বারবার ধর্না দিয়েও কোন সুফল পাননি বলে জানান তারা। আর তাই জীবন বাঁচানোর প্রধাণ উপকরন পানির দাবীতে স্থানীয় সাংসদ একেএম সেলিম ওসমানের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগী এলাকাবাসী।

সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে মিলেছে অভিযোগের সত্যতা। নবীগঞ্জ ঘাট সংলগ্ন ওয়াসার পানির পাম্পটি প্রায় এক মাস যাবত নষ্ট। এই দীর্ঘ সময় পানি না পেয়ে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে এলাকার জনগন। এ বিষয়ে একাধীকবার স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর আফজাল হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলেও কোন সুফল পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী। তাছাড়া ওয়াসা অফিসেও একাধীকবার যোগাযোগ করা হয়েছে বলেও জানান তারা।

স্থানীয় ব্যবসায়ী ফারুক হোসেন এ বিষয়ে নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, ১৯৯৭ সাল থেকে ওয়াসার এই পাম্পটি চলছে। গত প্রায় এক মাস আগে পাম্পটি নষ্ট হয়ে যায়। এর পর থেকে আমরা সীমাহীন কষ্টের মধ্যে আছি। পুরো এলাকা মরুভূমি হয়ে যাচ্ছে পানির অভাবে। দ্রুত পাম্পটি পুন:স্থাপন করার জন্য কতৃপক্ষের কাছে জোর দাবী জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে স্থানীয় এক বাড়ির মালিক উত্তম সাহা নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, পানির অপর নাম জীবন। অথচ প্রায় এক মাস যাবত এলাকায় কোন পানি পাচ্ছে না সাধারণ মানুষ। ফলে প্রাত্যহিক কর্ম সম্পাদনে সীমাহীন ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে এলাকাবাসীকে। সাধারণ মানুষের এই দূর্ভোগ লাঘবে স্থানীয় সাংসদ একেএম সেলিম ওসমানের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

পানির অভাবে সাংসারিক কাজ করতে না পারা জনৈক গৃহবধু নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, পানি ছাড়া কোন কাজই করা যায় না। কিন্তু আমাদের দু:খ দেখারও যেনো কেউ নাই। আমাদের খাওয়া দাওয়া, গোসল থেকে শুরু করে সকল কাজ সারতে হচ্ছে নদীর পানি দিয়ে। আর আপনারাতো জানেন নদীর পানি কতটা নিরাপদ। তাই আমাদের এই কষ্টের থেকে মুক্তি দিতে অবিলম্বে ওয়াসার কাছে নতুন পাম্প বসানোর দাবী জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে ঢাকা ওয়াসা, নারায়ণগঞ্জ মডস এর নির্বাহী প্রকৌশলী একেএম মশিউল আলম নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, পাম্পটি পুরোপুরি নষ্ট হয়ে গেছে, এখন নতুন পাম্প বসাতে হবে এবং এর জন্য প্রয়োজনীয় কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে। নতুন পাম্প বসাতে আরো এক মাস সময় লাগবে। এ সময়ে ওয়াসার পানির গাড়ি দিয়ে দিনে ১০/১২ বার পানি দেওয়া হচ্ছে এলাকাবাসীর মধ্যে। আশা করছি নতুন পাম্প বসানো হয়ে গেলে আর এ সমস্যা থাকবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here