নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানার প্রতিবাদে রাজপথে নেমে যখন পুলিশের ধাওয়া খাচ্ছিলেন মহানগর বিএনপির নেতাকর্মীরা, তখন নিজ বাস ভবনে এসি রুমে বসে শীতল হাওয়ায় আয়েশী সময় কাটান নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সভাপতি এড. আবুল কালাম।
আর কেন্দ্রে মিটিং থাকার অজুহাতে বিক্ষোভ সমাবেশ স্থগিত করায় পুলিশী হয়রানী থেকে বেঁচে গেছেন জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা বলে মন্তব্য করেছেন একাধিক শীর্ষস্থানীয় নেতা।

কেননা, এরআগে সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচী শেষে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে নেতাকর্মীদের রাজপথে ফেলেই মোটর সাইকেলে চড়ে দ্রুত পালিয়ে গিয়েছিলেন জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান ও সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ।

যেই কারনে বুধবার (২৫ অক্টোবর) কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে সকাল ১০ টায় মহানগর বিএনপির নেতৃবৃন্দ নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে দাঁড়িয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করার চেষ্টা কালে পুলিশী বাঁধার মুখে করতে পারার দৃশ্য দেখে বিকেল ৪ টায় একই স্থানে বিক্ষোভ সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েও কেন্দ্রে যাওয়ার অজুহাতে সমাবেশটি স্থগিত করে দেন বলে ক্ষুব্ধ মনোভাব ব্যক্ত করেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।

তাদের অভিমত, বুধবার বিকেলে কেন্দ্রে মিটিংয়ের বিষয়টি অবশ্যই আগে থেকে জেলা বিএনপির সভাপতি সাধারন সম্পাদক জানতেন। তাই তারা যদি চাইতেন তাহলে অন্যান্য দিনের মত এদিনও মহানগর বিএনপির পর সকালেই কেন্দ্রীয় কর্মসূচী পালন করতে পারতেন। কিন্তু জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দরা সেটা না করে পুলিশী হয়রানীর ভয়ে কেন্দ্রের মিটিংয়ে যোগ দেয়ার অজুহাত দেখিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচী স্থগিত করে দিয়েছেন।

অথচ, সকালে মহানগর বিএনপির নেতৃবৃন্দরা পুলিশী বাঁধায় রাজপথে বিক্ষোভ সমাবেশ করতে ব্যর্থ হয়েও কালীরবাজারস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে গিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করে কেন্দ্রীয় কর্মসূচী পালন করেছে। যদিও পুলিশী বাঁধার ঘটনার সময় মহানগর বিএনপির সভাপতি তার নিজ বাসায় বসে শীতল হাওয়ার পরশ নিয়েছেন। কিন্তু বাঁধার পরেও কর্মসূচী ঠিকই পালন করে দেখিয়ে দিয়েছেন মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামাল, সহ-সভাপতি এড. জাকির হোসেনসহ অন্যান্য শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দরা।

বিক্ষোভ মিছিল স্থগিত প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে জানান, ‘ আগামী ২৯ শে অক্টোবর বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে যাবেন। তাই এই বিষয়ে গুলশানের দলীয় কার্যালয়ে বুধবার বিকেলে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় কেন্দ্রের নির্দেশনা মোতাবেক জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জান এবং আমি যোগ দেয়ায় বিক্ষোভ কর্মসূচীটি স্থগিত করা হয়েছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here