নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: আসন্ন পবিত্র ঈদ-উল-আযহা’র আর মাত্র কয়েকটি দিন বাকী আছে। এরই মধ্যে জমে উঠেছে গরু ছাগলের হাটগুলো। ক্রেতারা তাদের নিজ নিজ পছন্দের পশু ক্রয় করছেন হাটগুলো থেকে। নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার কাশিপুর ইউনিয়ন বড় মসজিদ সংলগ্ন মাঠে জমে উঠেছে বিশাল একটি গরু ছাগলের হাট।
মঙ্গলবার (২৯ আগষ্ট) বিকাল ৫ টায় সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে প্রচুর পশু এই হাটে এবার এসেছে। বিশাল বড় আকারের গরুর সংখা এই হাটে ছিল চোখে পড়ার মতো। তাছাড়া মাঝারি থেকে ছোট সাইজের গরু এবং ছাগল এখানে দেখতে পাওয়া গেছে। পাহাড়ী, শামীম/শাহীন, ডিপজল/মানিক, কাজল ইত্যাদি নামের বিশাল বড় আকারের গরু এই হাটে পাওয়া যাচ্ছে।

শামীম ও শাহীন নামের গরু দুটির মালিক আব্দুস সালাম জানান, তিনি সিরাজগঞ্জ জেলার শাহাজাতপুর থানার কাশিপুর গ্রাম থেকে এ দুটি গরু ছাড়াও আরো ৭টি গরু এই হাটে বিক্রি করতে এসেছেন। দুটো গরুরই এখন পর্যন্ত দাম উঠেছে সাড়ে ৪ লাখ টাকা। তিনি আরো বেশী দামে বিক্রি করার প্রত্যাশা করছেন।

এ সময় গরু দুটির মালিক আব্দুস সালাম বলে উঠেন, ‘কাশিপুরের গরু এবার এসেছে কাশিপুরের হাটে’। গত বছরও তিনি এই কাশিপুরের হাটে গরু এনে বিক্রি করে লাভবান হয়েছিলেন বলে জানান তিনি।

‘পাহাড়’ নামের গরুটির মালিক মোঃ রিপন মিয়া জানান, তার বাড়ি সিরাজগঞ্জ জেলার শাহাজাতপুর থানার ওই কাশিপুর গ্রামেই। তিনিও ৭/৮টি গরু এই হাটে এনেছেন। তার পাহাড়ের দাম উঠেছে ২ লাখ টাকা। তিনি আরো বেশী দামে বিক্র করবে বলে জানান। ‘ডিপজল ও মানিক’ নামের গরুর মালিক রাশেদ মিয়া জানান, তার বাড়ি ওই একই জেলায় অবস্থিত। তার ডিপজল আর মানিক এর দাম উঠেছে ৫ লাখ টাকা করে। তিনি আরো বেশী দামে গরু দুটি বিক্রি করতে চাচ্ছেন।

এই হাটে গরু নিয়ে আসা বেপারীরা আরো জানান, গত বছরও আমরা এই কাশিপুর এলাকার হাটে গরু বিক্রি করার জন্য এনেছিলাম এবং ভাল দামে বিক্রি করে অনেক লাভবান হয়েছিলাম। এই এলাকার স্থানীয়রা আমাদেরকে অনেক সাহায্য করছেন।
কোন ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড অথবা কেউ জোর পূর্বক গরু নিতে চায় কিনা জানতে চাইলে তারা নিউজ প্রচ্যের ডান্ডিকে জানান, না এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি। আশাকরি আমরা এই হাটে গরু বিক্রি করে নির্বিঘেœ বাড়ি ফিরতে পারবো।

হাটের ইজারাদার আলহাজ্ব আইয়ূব আলী জানান, এই হাটে আসা গরু ব্যবসায়ীদের যেন কোন ধরনের অসুবিধা না হয় সেদিকে আমরা ভালভাবে খেয়াল রাখছি। আমাদের হাটকর্মীরা অত্যন্ত নিরলসভাবে তাদের কার্যক্রমগুলো পরিচালনা করছেন। আশা করি সফলভাবে এই হাটের কার্যক্রম সমাপ্ত হবে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here