নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের আহবায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকারের ভাবমূর্তি কেন্দ্রে বাড়িয়ে দিচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপি’র নেতারা-কেন্দ্রীয় বিএনপি’র একটি সূত্র থেকে এমনটিই জানা গেছে।
বিএনপি’র চেয়ারপার্সণ বেগম খালেদা জিয়াসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে খোরশেদের নামে দফায় দফায় বিচার দিয়ে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র শীর্ষ নেতাদেরকেই উল্টো কথা শুনতে হচ্ছে কেন্দ্রের কাছ থেকে। একজন যুবদল নেতার বিরুদ্ধে মূল দলের নেতাদের এই বিচার চাওয়ায় খোরশেদের ইমেজ বেড়ে যাচ্ছে কেন্দ্রের কাছে, আর গ্রহনযোগ্যতা হারাচ্ছেন বিএনপি নেতারা-এমনটাই নিশ্চিত হওয়া গেছে সেই সূত্র থেকে।

সূত্রে প্রকাশ, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারীতে ঘোষনা করা হয় নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপি’র নতুন কমিটির। কিন্তু ঘোষনার পর থেকেই বিতর্কের মধ্যে পরে এই নতুন কমিটি। দলের ত্যাগী নেতাদের নতুন কমিটিতে অবমূল্যায়ন করে অযোগ্য নেতাদের কমিটিতে স্থান দেওয়ার অভিযোগ উঠে শুরুতেই। জেলা ও মহানগর বিএনপি’র সভাপতিকে নিয়ে বিতর্ক হয় বেশী। জেলা বিএনপি’র সভাপতি কাজী মরিুজ্জামান ও মহানগর বিএনপি’র সভাপতি এড. আবুল কালামের বিগত দিনে আন্দোলন সংগ্রামে ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র ত্যাগী নেতাকর্মীরা। তাছাড়া সরকারী দলের সাথে সখ্যতা থাকা আবুল কালাম আজাদ বিশ^াস, আতাউর রহমান মুকুল, শওকত হাশেম শকু, হান্নান সরকারদের মতো নেতাদের গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়ায়ও সৃষ্টি হয় বিতর্কের। আর এই বিতর্কের এক পর্যায়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম সম্পাদক পদ থেকে পদত্যাগ করেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের আহবায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।

পদ থেকে পদত্যাগের পর কমিটি নিয়ে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন নেতিবাচক মন্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোষ্ট করেন খোরশেদ। এমনকি কমিটি প্রদানকারী কেন্দ্রীয় নেতাদের ‘দোকানদার’ উল্লেখ করে ষ্টেটাস দেন তিনি। তাই মহানগর বিএনপি’র একটি সমাবেশে কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতেই নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সভাপতি এড. আবুল কালাম খোরশেদকে নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ার দাবী জানান কেন্দ্রের কাছে।

এরপর থেকে খোরশেদের বিপক্ষে একের পর এক নালিশ দিতে থাকেন জেলা ও মহানগর বিএনপি’র একাধীক শীর্ষ নেতা। এই অভিযোগ দলীয় চেয়ারপার্সণ থেকে শুরু করে মহাসচিব ও কেন্দ্রীয় শীর্ষ নেতাদের কাছ পর্যন্ত পৌছে দিচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র নেতারা। কিন্তু এতে হীতে বিপরীত হচ্ছে বিএনপি নেতাদের জন্য। দলীয় চেয়ারপার্সণ থেকে শুরু করে কেন্দ্রেীয় নেতাদের তিরস্কারের মুখোমুখি হতে হচ্ছে তাদের। একজন যুবদল নেতার জন্য একাধীক বিএনপি নেতার অভিযোগ খোরশেদকেই এগিয়ে দিচ্ছে কেন্দ্রের কাছে। একজন যুবদল নেতাকে ঠিক মতো সামলাতে না পারলে হাজার হাজার নেতাকর্মীকে কিভাবে সামলাবেন নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র মহারথীরা-সে প্রশ্নে বারবার বিব্রত হতে হচ্ছে তাদের। বিপরীতে জেলা ও মহানগর বিএনপি’র বাঘা বাঘা নেতারা যার জন্য উতলা, সেই খোরশেদেরই ভাবমুর্তি দিনকে দিন উজ্জল হচ্ছে কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here