নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ ও জেলার প্রভাবশালী নেতা একেএম শামীম ওসমান বলেছেন, আমি খুব বিব্রতকর পরিস্থিতিতে আছি। গত ৫ বছর পূর্বে এখানে সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রী আসলেন। তিনি কথা দিয়েছিলেন এই স্টেডিয়ামটা পূর্ণাঙ্গ স্টেডিয়াম করবেন। মন্ত্রীর কথা মানে সরকারের কথা। আর এই সরকার ঘুমানো সরকার না, যা বলে তা করে। এই এলাকায় হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ হয়েছে। বলতে গেলে ৯৯ ভাগ কাজ শেষ। আজ আমি বাবার জায়গায় দাড়িয়ে বলি, যে নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগের জন্ম, যেখান থেকে একসময় মাঠ কাঁপানো বাংলাদেশের জাতীয় দলের খেলোয়ার তৈরি হতো, সেই জেলা আজ অবহেলিত। আপনি এখানে পূর্ণাঙ্গ ক্রীড়া কমপ্লেক্স করে নারায়ণগঞ্জকে সম্মানিত করবেন।

জেলা প্রশাসক গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। নারায়ণগঞ্জ জেলার জেলা প্রশাসক মোঃ জসীম উদ্দিনের সভাপতিত্বে মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল।
সাংসদ আরো বলেন, আমারা শুধু লাশ হয়েছি। আওয়ামী লীগ করি বলে আমাদের উপড়ে বোমা ব্লাষ্ট করা হলো। সাথে সাথে ২০ জন নাই। এখানে চন্দন উপস্থিত আছে। সে ওইদিন পা হারিয়েছিল। ৯৫ থেকে ৯৬ এই এক বছরে লাশ দাফন করতে করতে আমরা ক্লান্ত হয়ে গেছি।

শামীম ওসমান আরো বলেন, আমি খুব অসুস্থ্য। অন্য কেউ আসলে হয়তো এখানে উপস্থিত থাকতাম না। তবে আজকে যিনি এখানে এসেছেন, আমি তাকে তুমি করেই বলি। সে আমাকে ভাই বলে আর আমি তাকে বাবা বলি। আমার হৃদয়ে ওর অবস্থান। তার (প্রতিমন্ত্রী) বাবা আহসান উল্লাহ মাষ্টার আর আমি শেখ হাসিনার খুব কাছে থাকতাম। আমার সাথে দেখা হলেই ওনি (আহসান উল্লাহ মাষ্টার) আমার বুকে দুষ্টুমি করে ঘুষি মারতেন। আমি বলতাম ব্যথা লাগে না! ওনি বলতেন, শামীম ওসমানের ব্যথা লাগে না। বিএনপি দিনের বেলায় তাকে গুলি করে হত্যা করলো। আজ ওনি নেই। তবে ওনার ছেলে আজ মন্ত্রী হয়েছেন। ভবিষ্যতে আরো অনেক বড় কিছু হবে। আমাদের সম্পর্কটা খুবই ক্লোজড (আন্তরিক)।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার (ভারপ্রাপ্ত) মনিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মাসুম বিল্লাহ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদা বারিক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক-সার্কেল) মেহেদি ইমরান সিদ্দিকি, বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকার, রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মমতাজ বেগম, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক তানভীর আহম্মেদ টিটু প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here