নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: বিএনপি চেয়ারপার্সনের বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাষ্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে যেকোন ধরনের নাশকতা প্রতিরোধে আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের পাশাপাশি ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা অবস্থান করেছে রাজপথে।
বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারী) রায় ঘোষণার দিন সকাল ১০ টায় নগরীর ২ নং রেলগেটস্থ নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে এসে প্রথমে অবস্থান গ্রহন করেন জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ। এরপর আসেন মহানগর আওয়ামীলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, শ্রমিকলীগ সহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন এবং নাসিক ওয়ার্ড কাউন্সিলরগন।

এই রায়কে ঘিরে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের ভেতরে এবং বাইরে সকাল থেকেই অবস্থান করেন ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা।

দুপুরে দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়ার ৫ বছরের জেল হওয়ার পর এক প্রতিক্রিয়ায় নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই বলেন, ‘আমরা আদালতের রায়ের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। দুর্নীতির দায়ে আদালত এতিমের অর্থ আত্মসাতকারীকে উপযুক্ত সাজা দিয়েছেন। আর এই রায়কে ঘিরে যেন বিএনপির নেতাকর্মীরা কোন ধরনের অরাজকারত সৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য আমরা এখন নিয়মিত দলীয় কার্যালয়ে অবস্থান করার পাশাপাশি আইনশৃংখলা বাহিনীকেও সহযোগিতা করবো।’

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘এই রায়ের বিষয়ে একটা জিনিস প্রমাণিত হয়েছে যে, জিয়া অরফানেজ ট্রাষ্টের নামে যে টাকা আনা হয়েছিল তার কোন হদিস নাই। এই মামলাটি আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে হয় নাই। তাই বিএনপি সরকারকে যতই দোষারোপ করুক না কেন তাতে জনগণ তাদের প্রপাগান্ডায় কান দিবে না। আদালত খালেদা জিয়াকে শাস্তি দিয়ে দুর্নীতিবাজদের সতর্ক করে দিয়েছেন। অর্থাৎ অপরাধ যেই করবে, সে যত বড়ই হউক না কেন, তার বিচার বাংলার মাটিতেই হবে।’

নাসিক ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কবির হোসাইন বলেন, ‘আইনের প্রতি আমরা যথেষ্ট শ্রদ্ধাশীল। আদালত যে রায় দিয়েছে তাতে আমরা খুুশি। আমরা জনগনের জান মাল রক্ষায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশে থেকে সকল ধরনের পরিস্থিতির মোকাবেলা করবো।’

বাংলাদেশ জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক সবুজ সিকদার বলেন, ‘যারা এতিমদের টাকা লুটে খায়, আমরা শ্রমজীবি মানুষ তাদের বিরুদ্ধে। এই মামলার রায়ের মাধ্যমে দেশের কোন মানুষ যেন এ ধরনের অন্যায় কাজ আর না করেন। আমরা রাজপথে আছি এবং থাকবো।’

জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের জাতীয় কমিটির সদস্য এড. আনিসুর রহমান দিপু, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো: শহীদ বাদল, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এড. খোকন সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক এড. মাহমুদা মালা, যুব মহিলা লীগ মহানগর আহ্বায়ক নুরুন নাহার সন্ধ্যা, মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ জেলার আহবায়ক নিজাম উদ্দিন আহমেদ, যুগ্ন আহবায়ক গোলাম কিবরিয়া খোকন, সদস্য খন্দকার মাসুদুর রহমান দিপু, বন্দর থানার সভাপতি আরিফুর রহমান, সাধারন সম্পাদক আব্দুল আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক শিপন প্রধান, জাতীয় শ্রমিক লীগ নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক মাইনুদ্দিন আহমেদ বাবুল, জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশনের দপ্তর সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী, নাসিক সাবেক কাউন্সিলর মনির হোসেন সহ প্রমূখ।

অপরদিকে, বন্দর থানাধীন মদনপুরে সকাল থেকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের জাতীয় কমিটির সদস্য এড. আনিসুর রহমান দিপুর নেতৃত্বে বন্দর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রশীদসহ দলীয় নেতাকর্মীরা সড়কে অবস্থান করেন।

আর ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে নারায়ণগঞ্জ জেলা কৃষকলীগ সভাপতি নাজিম উদ্দিনের নেতৃত্বে দলীয় নেতাকর্মীরা সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের পাশাপাশি বিভিন্ন পয়েন্টে বিএনপি নেতকার্মীদের নাশকতা রোধে অবস্থান করেন।

এছাড়াও ফতুল্লায় থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ এম সাইফুল্লাহ বাদলের নির্দেশে শতাধিক দলীয় নেতাকর্মী কাশীপুর, বিসিক শিল্পাঞ্চলসহ বিভিন্ন পয়েন্টে, থানা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এম শওকত আলীর দিকনির্দেশনায় দলীয় নেতাকর্মীরা পঞ্চবটী, ফতুল্লা এলাকায় নাশকতা প্রতিরোধে দিনভর অবস্থান করেন।

তাছাড়াও আড়াইহাজার, রূপগঞ্জ ও সোনারগাঁয়ে আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা বিএনপির নাশকতা রোধে সড়কে অবস্থান করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here