নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার কক্সবাজার যাত্রকালে নেত্রীকে সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে স্বাগত জানানোর ক্ষেত্রে নিজ ছবি সম্বলিত ব্যানার ফেস্টুন না রাখতে দলীয় নেতাকর্মীদের কেন্দ্র থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল।

তাই অনেকটা দু:শ্চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলার সম্ভাব্য এমপি পদ প্রার্থীরা। বিকল্প উপায় খুঁজেন, কিভাবে নেত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা যায়!

শেষতক বিকল্প পদ্ধতি ব্যবহার করে দলীয় নেতাকর্মীদের হাতে নিজেদের ছবি সম্বলিত ‘প্ল্যাকার্ড’ ধরিয়ে দিয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সনের দৃষ্টি আকর্ষণে সক্ষম হলেন নারায়ণগঞ্জের সম্ভাব্য এমপি পদ প্রার্থীরা।

শনিবার (২৮ অক্টোবর) সকাল ১১ টায় কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনের উদ্দেশ্যে গুলশান থেকে যাত্রা শুরু করেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক হয়ে খালেদা জিয়ার গাড়ী বহর যাওয়ার সময় নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড মোড় থেকে চিটাগাং রোড, মদনপুর, সোনারগাঁ চৌরাস্তা, রূপগঞ্জ, আড়াইহাজার থানাধীন মহাসড়ক পর্যন্ত খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানান নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতৃবৃন্দরা। এসময় খালেদা জিয়াও গাড়ীর ভিতরে থেকে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে হাত নেড়ে ধন্যবাদ জানান।
কিন্তু নেত্রীকে স্বাগত জানানোর ব্যানারে শুধুমাত্র জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ছবি ব্যাতীত অন্যান্য নেতাদের ছবি ও নাম ব্যবহার করতে কেন্দ্রের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও তা মানেনি বিএনপির অনেক শীর্ষ নেতৃবৃন্দরা।

দেখাগেছে, মহানগর বিএনপির ব্যানারে মহানগর বিএনপির সভাপতি এড. আবুল কালাম, মহানগর যুবদলের ব্যানারে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এড. তৈমূর আলম খন্দকারের ছবি ব্যবহার করা হয়েছে।

তবে বিকল্প উপায়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার দৃষ্টি আকর্ষণের লক্ষ্যে দলীয় নেতাকর্মীদের দিয়ে নিজেদের ছবি সম্বলিত ‘প্ল্যাকার্ড’ ব্যবহার করেছেন আগামী সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ জেলাধীন সংসদীয় ৫টি আসনের ‘ধানের শীষ’ মনোনয়ন প্রত্যাশী সম্ভাব্য এমপি প্রার্থীরা।


সরেজমিন দেখাগেছে, বিএনপি চেয়ারপার্সন নারায়ণগঞ্জের মহাসড়ক হয়ে কক্সবাজার যাত্রাকালে সড়কের দু’ধারে দাঁড়িয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানান সম্ভাব্য এমপি প্রার্থীরা। আর তখন তাদের ছবি সম্বলিত ‘প্ল্যাকার্ড’ হাতে উঁচিয়ে নেত্রীসহ গাড়ী বহরে থাকা কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করেন দলীয় নেতাকর্মীরা।

তবে আশ্চর্য্যজনক হলেও সত্যি! সকল এমপি পদপ্রার্থীদের নিজ অনুসারী নেতাকর্মীদের হাতে একই ধরনের ‘প্ল্যাকার্ড’ দেখা গিয়েছে। শুধু নেতাদের ছবিটা ছিল ভিন্ন। তাই ব্যানার ফেস্টুনে ছবি বা নাম ব্যবসহার না করার নির্দেশনা থাকলেও বিকল্প পদ্ধতির মাধ্যমে বিএনপি চেয়ারপার্সনের দৃষ্টি আকর্ষণে দলীয় সম্ভাব্য প্রার্থীরা সফল হয়েছেন বলে মন্তব্য করেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।

জানাগেছে, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানানোর পাশাপাশি তার দৃষ্টি আকর্ষণের লক্ষ্যে নিজ বলয়ের নেতাকর্মীদের নিয়ে সড়কের পাশে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে ‘ধানের শীষ’ প্রত্যাশী বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এড. তৈমুর আলম খন্দকার, জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান ও কেন্দ্রীয় নেতা মোস্তফিজুর রহমান দিপু ভূইয়া, নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে কেন্দ্রীয় বিএনপির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক বদরুউজ্জামান খসরু, সাবেক এমপি আতাউর রহমান আঙ্গুর, কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ, নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ): সাবেক মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক রেজাউল করিম, মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল, সোনারগাঁ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম মান্নান, নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে সাবেক এমপি গিয়াস উদ্দিন, জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহ আলম, নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর ও বন্দর) আসনের সাবেক এমপি ও মহানগর বিএনপির সভাপতি এড. আবুল কালাম, মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান, মহানগর যুবদল আহ্বায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।

এছাড়াও বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, এরআগে বিএনপি চেয়ারপার্সনের কক্সবাজার যাত্রা উপলক্ষ্যে সড়কপথে তাকে স্বাগত জানানোর লক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতৃবৃন্দদের গত ২৫ অক্টোবর বিকেলে ঢাকায় তলব করে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা প্রদান করেন মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

২৮ অক্টোবর দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের দেখতে যাওয়ার পথে নারায়ণগঞ্জের মহাসড়কের দু’পাশে কিভাবে ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে দাঁড়িয়ে দলের নেতাকর্মীরা নেত্রীকে স্বাগত জানাবেন, সেই লক্ষ্যে দিক নির্দেশনা দেন মহাসচিব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here