নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার পাশের চেয়ারে বসার সুযোগ পেয়ে নিজেকে বড় হিসেবে জাহির করার চেষ্টা করলেও খোদ নিজ জেলা নারায়ণগঞ্জেই ‘চেয়ারহীন’ হয়ে আছেন চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এড. তৈমূর আলম খন্দকার।
আগে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি হওয়ায় দলীয় কার্যালয়ে তার বসার জন্য একটি ‘চেয়ার’ নির্দিষ্ট ছিল। কিন্তু শত চেষ্টা করেও চলতি বছরের ফেব্রুয়ারীতে গঠিত নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির কমিটিতে ঠাঁই না পাওয়ায় পদচ্যুৎ হয়ে এড. তৈমূর আলম খন্দকার এখন তার সেই বসার ‘চেয়ার’টি হারিয়ে ফেলেছেন।

ফলে এখন শুধুমাত্র দলীয় কোন কর্মসূচীতে তাকে অতিথি করা হলেই কেবল সেখানে বসার জন্য এড. তৈমূর আলম খন্দকার নির্দিষ্ট চেয়ার পান। অন্যথায় বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হওয়া সত্ত্বেও জেলার ক্ষমতা খর্ব হওয়ায় তিনি এখন আর চাইলেই দলীয় কোন কার্যালয়ে গিয়ে সভাপতির চেয়ারে বসতে পারেন না। তাই নিজ বাসভবনের চেয়ারই এখন তৈমূরের বসার একমাত্র নির্দিষ্ট জায়গা বলে মন্তব্য করেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।

জানাগেছে, দীর্ঘ তিন মাস চিকিৎসা শেষ করে গত ১৮ অক্টোবর লন্ডন থেকে দেশে ফেরার পর ধারাবাহিক আলোচনার অংশ হিসেবে গত ২১ নভেম্বর রাতে গুলশানের দলীয় কার্যালয়ে উপদেষ্টাদের সাথে বৈঠক করেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া।

যেখানে চেয়ারপার্সনের ঠিক বামদিকের প্রথম সারির চেয়ারেই বসেন, তার উপদেষ্টা এড. তৈমূর আলম খন্দকার। যেই ছবি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর তৈমূর অনুগামীরা নিজেদের একটু বড় ভাবতে শুরু করলেও বাস্তবে নিজ জেলাতেই বসার স্থান হারিয়ে ফেলেছেন পদচ্যুৎ নেতা এড. তৈমূর আলম খন্দকার। যা অত্যন্ত লজ্জাকর বলে মন্তব্য করেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here