নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: সরকারী ত্রাণ বিতরণ ও দুস্থ্য মানুষের তালিকা তৈরীসহ করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় নেওয়া নানা পদক্ষেপে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের বিরুদ্ধে স্বজনপ্রিতির অভিযোগ তুলেছেন ১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। প্রকৃত দুস্থ্যদের বাদ দিয়ে নিজ নেতাকর্মীসহ বিএনপির লোকদের কাছে ত্রাণ বিতরণ ও সরকারী অনুদানের তালিকায় নিজ বলয়ে লোকদের স্থান দিয়েছেন খোরশেদ, এ বিষয়ে ১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলগি বা কোন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে সমন্বয় করেননি বরং নিজের খেয়াল খুশিমতো করেছেন বলে অভিযোগ ওয়ার্ড আওয়ামলীগ নেতাকর্মীরা।

১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জহিরুল আহসান তার ফেসবুক আউডিতে এ বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে একটি ষ্টেটাস দিলে তা নিয়ে আলোচনার ঝড় বয়ে যায়। তিনি ফেসবুক ষ্টেটাসে লেখেন, “ত্রাণ, কিউআর কার্ড বিতরণের জন্য সারাদেশের ওয়ার্ড পর্যায় পর্যন্ত ত্রাণ কমিটি গঠন করতে আওয়ামীলীগের সহযোগী সংগঠনগুলোকে নির্দেশ দিয়েছিলেন দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
কিন্তু নারায়ণগঞ্জ মহানগর ১৩ নং ওয়ার্ডে এরকম কোন সমন্বয় করা হয়নি। এমনকি কিভাবে কার্ড বিতরণ হবে, কাদের মাঝে দেয়া হবে এ বিষয়েও ১৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের কেউই অবগত না। জননেত্রীর আদেশ থাকা সত্তেও এবিষয়টিকে কেন উপেক্ষা করা হলো তা খুঁজে বের করার জন্য প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।”

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জহিরুল আহসান নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, করোনা মোকাবেলায় বর্তমান সরকার অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরাও নিজেদের জীবনের মায়া ত্যাগ করে কাজ করে যাচ্ছে। মাননীয় প্রধাণমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন ত্রাণ বিতরণ ও তালিকা তৈরী করার জন্য স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে সমন্বয় করে কর্মকান্ড চালাবেন জনপ্রতিনিধি। কিন্তু ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরকারী ত্রাণ কখন কোথায় কাকে দিয়েঝেন কিংবা দুস্থ্য মানুষের তালিকা কাদের নিয়ে করেছেন এ বিষয়ে আমরা কিছুই জানিনা। এমনকি আমাদের সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রবিউল হোসেনকেও জানানো হয়নি। কাউন্সিলর তার মন মতো বিএনপির নেতাকর্মীদের নাম তালিকায় স্থান দিয়েছে, বাদ দেয়া হয়েছে প্রকৃত অসহায়দের। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই। আমি এ বিষয়ে প্রধাণমন্ত্রীর কার্যালয়ে স্মরাকলিপি প্রদান করবো।

এ বিষয়ে জানতে ১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রবিউল হোসেনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

অভিযোগের বিষয়টি অস্বীকার করে ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, সরকার প্রদত্ত সকল নির্দেশনা মানা হয়েছে, কোথাও কোন অনিয়ম করা হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here