নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: চলছে ফাল্গুন মাসের মাঝামাঝি সময়। গ্রীষ্মের গরমের তীব্র তাপদাহ এখনও পুরোপুরি ভাবে শুরু হয়নি। এরই মধ্যে নগরীজুরে শুরু হয়ে গেছে বিদ্যুতের লোড শেডিংয়ের লুকিচুরি খেলা। কখনো দিনের বেলায় আবার কখনো চলে সন্ধ্যা ও রাতের বেলায়।
গ্রীষ্মকাল শুরু হওয়ার আগেই নগরীতে চলছে ঘন ঘন বিদ্যুতের এই লোড শেডিং। তাই লোড শেডিং সম্পর্কে নগরবাসীর মনে আগাম একটা সতর্ক বার্তার আভাস পাওয়া যাচ্ছে!

বিদ্যুতের ঘন ঘন এই লোড শেডিংয়ের কারনে বিভিন্ন কলকারখানায় উৎপাদন বৃদ্ধি ব্যাহত হয়, স্কুল-কলেজে পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীদের লেখাপড়ায় চরম ব্যাঘাত ঘটে।

সচেতন নগর বাসী মনে করেন সামনে আসছে গরমের মৌসুম এভাবে যদি অনবরত বিদ্যুতের লোড শেডিং হয় তাহলে আমাদের কাজকর্ম থেকে শুরু করে দৈনন্দিন কাজের অনেক ক্ষতি হবে। শীতের মৌসুমে নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে বিদ্যুতের সার্ভিস পেলেও গরমের মৌসুমে শুরু থেকেই ঘন ঘন লোড শেডিংয়ে আমাদের দূর্ভোগ পোহাতে হয়।

তারা আরো বলেন, বিশেষ করে সন্ধায় বিদ্যুতের এই লোডশেডিং দেওয়া হলে আমাদের ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়ায় অনেক ক্ষতি হয়। সরকার বিদ্যুতের কোন ঘারতি নেই বললেও এ ধরনের লোডশেডিং দেখলে তা বোঝা যায় না আছে কি নেই।

আসছে গ্রীষ্মকালে যেন বিদ্যুতের লোড শেডিংয়ের এই লুকোচুরি খেলা থেকে নগরবাসী মুক্ত হবেন এমনটাই আশাবাদ তাদের।
এ বিষয়ে জানতে ডিপিডিসি কিল্লারপুলের উপ-পরিচালকের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোনটি রিসিভ করেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here