নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: স্কুল শিক্ষিকার দায়েরকৃত ঘুষ গ্রহণের মামলায় আদালতে হাজিরা দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের আলোচিত শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্ত।
বৃহস্পতিবার (১৩ জুলাই) সকালে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আফতাব উদ্দিনের আদালতে হাজিরা দেন তিনি। শুনানী শেষে আদালত উক্ত মামলাটি বিচারিক আদালতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আদালতে হাজিরা শেষে সাংবাদিকদের কাছে শিক্ষক শ্যামল কান্তি বলেন, ‘পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আমাকে স্কুল থেকে তাড়ানোর জন্য মিথ্যা ঘুষের মামলা দায়ের করা হয়েছে। আমি এখনো আতঙ্কে আছি। যেকোন মূহুর্তে আমার ক্ষতি হতে পারে।’

বাদীপক্ষের আইনজীবী এড. সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, ‘শ্যামল কান্তির বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহণের মামলাটি বিচারিক আদালতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আফতাব উদ্দিন।’

প্রসঙ্গত, গত বছরের ১৩ মে নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার কল্যানদীতে পিয়ার সাত্তার লফিত উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে ধর্মীয় অবমাননার অভিযোগে সাংসদ সেলিম ওসমানের উপস্থিতিতে কান ধরে উঠ বস করানো হয়। এ ঘটনা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রকাশ পেলে সারাদেশে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। এরপর গত বছরের ১৭ জুলাই ওই স্কুলের ইংরেজী বিভাগের শিক্ষিকা মোর্শেদা বেগম বাদী হয়ে এমপিওভুক্ত করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে ১ লাখ ৩৫ হাজার টাকা ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তির বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন। পুলিশ তদন্ত শেষে চলতি বছরের গত ২৪ মে আদালতে ওই মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করে। তারপর আদালত শ্যামল কান্তির বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেন। পরে ঐদিনই বিকেলে আইনজীবীর মাধ্যমে আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিন চাইলে আদালত তা না মঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। গত ৩১ মে জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেনের আদালত আগামী ২০ জুলাই পর্যন্ত শ্যামল কান্তি ভক্তের অন্তবর্তীকালিন জামিন মঞ্জুর করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here