নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: কালের বিবর্তনে নারায়ণগঞ্জ শহরের যানজট যেন মানুষের চিরচেনা জনদূর্ভোগে পরিনত হয়েছে। প্রতিদিন অসহনীয় এই যানজট মোকাবেলা করে চলতে হচ্ছে নগরীর পথচারী ও যাত্রীদের।

অথচ, আগামী ইংরেজী নববর্ষে যানজট মুক্ত নগরী উপহার দেয়ার প্রয়াসে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি সেলিম ওসমান একাধিক পরিকল্পনা গ্রহণ করলেও কার্যত দিনকে দিন যানজটের মাত্রা যেন আরো ভয়াবহ আকার ধারন করছে।

এছাড়াও নগরীর যানজট নিরসনে একাধিকবার নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমান নিজে রাস্তায় নেমে ট্রাফিকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হলেও যানজট যেন কোন ক্রমেই কমছেনা ছোট শহর নারায়ণগঞ্জে।

বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) সকাল থেকে সন্ধ্যা অবধি পর্যায়ক্রমে সরেজমিন দেখাগেছে, সপ্তাহের শেষ কর্মদিবস হওয়ায় অন্যন্য দিনের তুলনায় এদিন নগরীতে যানজট লেগেই ছিল। সকাল থেকেই যানজট লেগে থাকায় বিশেষ করে জেএসসি পরীক্ষার্থী এবং কর্মজীবি মানুষদের নির্দিষ্ট গন্তব্যে যেতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়।

তবে যানজটের কারন হিসেবে দেখাগেছে, মূলত চাষাড়া গোল চত্ত্বর কে ঘিরেই এই যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। যার প্রভাব শহরের ২নং রেলগেট, কখনো বা ডিআইটি পর্যন্ত ছাড়িয়ে যাচ্ছে। আর ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে জনসাধারনকে।

এছাড়াও নগরীর ২নং রেলগেট এলাকা থেকে চাষাড়া পর্যন্ত প্রধান সড়কের দু’ধারে ব্যাক্তি, ভাড়ায় চালিত এবং মালবাহী গাড়ী অবৈধ ভাবে ঘন্টার পর ঘন্টা পার্কিং করে রাখার কারনে নগরীতে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। কিন্তু মাঝে মধ্যে সড়কের উপর থাকা এই সকল যানবাহন পার্কিং রোধে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে পদক্ষেপ নিতে দেখা গেলেও সড়কের উপর অবৈধ পার্কিং বন্ধ করা যেন অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আর তাই নগরীকে স্থায়ী ভাবে যানজট মুক্ত করতে পরিকল্পনা মাফিক কাজ করার জন্য নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক বিভাগের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন নগরবাসী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here