নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: টেন্ডার সম্পন্ন হলেও সংস্কার কাজ শুরু না হওয়ায় চাষাঢ়া বালুর মাঠ এলাকায় বসবাসরত বন্যার্তদের জরুরী ত্রাণ দেয়া প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন এই এলাকা দিয়ে চলচালরত ভুক্তভোগী পথচারীরা। কেননা, সামান্য বৃষ্টিতে খানাখন্দে ভরা এই সড়কটিতে জলবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। যার ফলে একপ্রকার বন্যার্ত এলাকার মত পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে চাষাঢ়া বালুর মাঠ এলাকা জুড়ে।
রবিবার (১৮ জুন) বিকেলে টানা বর্ষণে গোটা বালুর মাঠ সড়ক জুড়ে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হওয়ায় সেই এলাকায় বসবাসরত বাসিন্দাদের রীতিমত গৃহবন্দি হয়ে থাকতে হয়েছে। কারন, একদিকে রাস্তা ভাঙ্গা অপরদিকে হাঁটু পানি জমে থাকায় রিকশা পেতেও বেগ পোহাতে দেখাগেছে পথচারীদের।

তাই রসিকতার সুরে জলাবদ্ধতায় ত্যক্ত জনৈক ব্যবসায়ী বলেন, বালুর মাঠ এলাকায় এখন বন্যা হয়ে গেছে। তাই এখানকার বাসিন্দাদের জরুরী ভিত্তিতে সিটি কর্পোরেশনের ত্রাণ দেয়া প্রয়োজন!

জানাগেছে, বেহাল চাষাঢ়া বালুর মাঠ সড়কের পুন: নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার কথা ছিল মে মাসের শেষে। এ লক্ষ্যে পুন:নির্মাণ কাজের টেন্ডার সম্পন্ন হয়েছে ৭ মে। জাপানী উন্নয়ন সংস্থা জাইকার অর্থায়নে দুই কোটি আঠারো লাখ টাকা ব্যয়ে ব্যস্ত এ সড়কের নির্মাণ কাজ করবে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন। ফলে এ সড়ক দিয়ে চলাচলরত পথচারীদের দীর্ঘদিনের দূর্ভোগ লাঘব হবে।

কিন্তু টেন্ডার সম্পন্ন হলেও এখনো অবদি কাজ শুরু না হওয়ায় সামান্য বৃষ্টিতেই জলাবদ্ধতায় চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে অতি গুরুত্বপূর্ণ এই এলাকার বাসিন্দাসহ সাধারন পথচারীদের।

তবে কবে নাগাদ সংস্কার কাজ শুরু হবে এব্যাপারে জানতে চাইলে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে জানান, জাপানী উন্নয়ন সংস্থা জাইকার অর্থায়নে এ সড়কটি নির্মাণ করবে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন। টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষে এখন জাইকা কাগজপত্র যাচাই বাছাই করছে। যার কারনে একটু সময় লেগে যাচ্ছে। তবে আশা করছি আগামী মাসের মধ্যেই সড়কটির সংস্কার কাজ শুরু হবে।

উল্লেখ্য, নারায়ণগঞ্জের প্রাণকেন্দ্র চাষাঢ়া বালুর মাঠ সড়কটির অবস্থা বেহাল। দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় সড়কটির বিভিন্ন জায়গায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সেসব গর্তে পানি জমে তা চলাচলের একদম অনুপযোগী হয়ে পরেছে। তাছাড়া রাস্তাটির যে অল্প কিছু স্থান ভালো রয়েছে তার প্রায় পুরোটাই দখল করে রেখেছে স্থানীয় লোহা ব্যবসায়ীরা। ফলে এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করা প্রায় দুরূহ হয়ে দাঁড়িয়েছে। লোহা ব্যবসায়ীদের দখল থেকে মুক্ত করে নগরীর ব্যস্ততম এই সড়কটি জনগনের চলাচলের জন্য পুন:নির্মানের দাবী এই এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের।

নারায়ণগঞ্জ শহরের ব্যস্ততম এলাকা চাষাঢ়া শহীদ মিনারের পাশ দিয়ে শুরু হওয়া রাস্তাটি বালুর মাঠের ভিতর দিয়ে প্রেসক্লাবের সামনে গিয়ে মিশেছে। প্রতিদিন কয়েকহাজার মানুষ এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করে। কিন্তু সংস্কারের অভাবে রাস্তাটি ভেঙ্গে বেশ কয়েকটি গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে এ রাস্তা দিয়ে রিক্সা বা হালকা যানবাহন চলাচল প্রায় অসম্ভব হয়ে দাড়িয়েছে। যারা যাচ্ছে তারা মাঝে মধ্যেই দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here