নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সভাপতি এড. আবুল কালামের রাজনীতির তিনকাল গিয়ে শেষকালে এসে ঠেকেছে। সবাই যেমন সেটা বুঝতে পেরেছে তেমনি বুঝেছেন আবুল কালাম নিজেও। মহানগর বিএনপিতে নিজের সূর্যাস্ত দেখে নিজ ছেলেকে মহানগর বিএনপিতে প্রতিষ্ঠিত করতে চাইছেন কালাম। আর তাই মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি পদে থাকার পরেও মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক পদে নেয়া হয়েছে কালাম পুত্র আবুল কাউসার আশাকে। যদিও বিএনপির গঠনতন্ত্রে সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ করা আছে একসাথে দুটি সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকা যাবে না, তারপরেও সকল নিয়মকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে মহানগর বিএনপির সভাপতি এড. আবুল কালাম ঠিকই ছেলেকে মূল দলে জায়গা করে দিয়েছেন আর এ সব কিছুর নেপথ্যে কলকাঠি নেড়েছেন বিএনপিতে কমিটি বানিজ্যে হোতা কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ। এবার মহানগর বিএনপি থেকে সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালকে মাইনাস করতে সেই আজাদকে দিয়েই লাখ টাকার নাটক সাজিয়েছেন কালাম পুত্র আশা।

জানা যায়, বিশ্বব্যাপী প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের প্রকোপের মাঝেও বন্ধ নেই অন্যায় অপকর্ম। বিশেষ করে অসহায় মানুষের জন্য বরাদ্দকৃত ত্রাণ আত্মসাতের ঘটনা ঘটছে অহরহ। তেমনি একটি ঘটনার জন্ম দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল ও সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আল ইউসুফ খান টিপু। লক ডাউনের কারনে কর্মহীন হয়ে পরা নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির অসহায় নেতাকর্মীদের জন্য কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদের বরাদ্দকৃত এক লক্ষ টাকা নিজেদের মধ্যে ভাগ বাটোয়ারা করে খেয়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে কামাল-টিপু জুটির বিরুদ্ধে। গত কয়েকদিন যাবত কামাল টিপুর এই অর্থ কেলেংকারী নিয়ে নানা আলোচনা সমালোচনা চলছে নারায়ণগঞ্জের রাজনৈতিক মহলে।

তবে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালকে বিতর্কিত করতেই এই এক লাখ টাকার নাটক সাজানো হয়েছে নজরুল ইসলাম আজাদের মাধ্যমে আর এর কারিগর হলেন আবুল কাউসার আশা। তাই নারায়ণগঞ্জ বিএনপির মতো এতো বিশাল একটি সংগঠনকে মাত্র এক লাখ টাকা দেওয়া এবং তাও আবার সবচেয়ে বিতর্কিত ব্যক্তি আবু আল ইউসুফ খান টিপুর মাধ্যমে বিতরণ করা সব এক সুতায় গাঁথা। এটিএম কামাল কিছু না বুঝেই তাদের পাতা ফাঁদে পা দিয়ে ফেঁসে যান সঙ্গে চিরকালীন বিতর্কিত টিপুতো রয়েছেনই। আর এর পরেই এ রম্য গল্পটি গণমাধ্যমের সাহায্যে ছড়িয়ে দেয়া হয় নারায়ণগঞ্জবাসীসহ সর্বত্র।

সূত্রে প্রকাশ, গত কয়েক বছর যাবত আবুল কালাম শিবিরে থাকা এটিএম কামাল ও আবু আল ইউসুফ খান টিপু সম্প্রতি মহানগর বিএনপি থেকে আবুল কালামকে মাইনাসের চেষ্টা করে যাচ্ছিলেন। সুযোগ বুঝে আবুল কালামও এক হাত নিয়ে নিলেন কামাল টিপুকে। নজরুল ইসলাম আজাদের দেয়া এক লক্ষ টাকা চুপিসারে ঠিকই সাবার করে দিয়েছিলেন কামাল আর টিপু। নিজেদের অধীনস্ত কিছু নেতাকর্মীদের দিয়ে মুখও বন্ধ রেখেছিলেন কিন্তু শেষ রক্ষা করতে পারেননি। মহানগর বিএনপির সভাপতি এড. আবুল কালামের কাছে এ খবর চলে আসে আর সুযোগসন্ধানী কালামও তা হাটে হাড় ভেঙ্গে দেওয়ার ব্যবস্থা করেন তা গণ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে। আর গণ মাধ্যমে আসার পর থেকেই বিতর্কের বান বয়ে যাচ্ছে এটিএম কামাল আর আবু আল ইউসুফ খান টিপুর বিরুদ্ধে। আর এভাবেই নিজ বলয়ে থেকেও বিরোধীতা করা কামাল টিপুর বিরুদ্ধে প্রতিশোধের মিশন কমপ্লিট করলেন মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here