নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: সাধারন জনগণকে জঙ্গীবাদ সৃষ্টিকারীদের সনাক্তের লক্ষণ জানালেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মো: মঈনুল হক।
বৃহস্পতিবার (৪ মে) সকাল সাড়ে ১০ টায় নাসিক ১৭নং ওয়ার্ডের পাইকপাড়ায় আদর্শ বালিকা বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকায় নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা কর্তৃক আয়োজিত জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে জনসচেতনা সৃষ্টির লক্ষে ভাড়াটিয়া তথ্য ফরম বিতরন কর্মসূচী এর শুভ উদ্বোধনীতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যকালে এই লক্ষণ গুলো তুলে ধরেন।

পুলিশ সুপার বলেন, জঙ্গীবাদ

সৃষ্টিকারীদের চেনার কিছু লক্ষন রয়েছে। সেগুলো হচ্ছে, যারা এর সাথে যুক্ত তারা ঘন ঘন বাসা বদলায়। এরা কোন প্রতিবেশীর সাথে মিশে না। তাদের ছেলে-মেয়েদের স্কুলে পাঠায় না। এরা নামাজ পড়ে ঘরের ভেতরে। কখনো এলাকার মসজিদে এরা যায় না। ঘরের দরজা জানালা সর্বদা বন্ধ রাখে এবং ঘরের নিত্য প্রয়োজনীয় আসভাবপত্র রাখেন না। এই লক্ষনগুলো দেখতে পেলে আপনাদের অবশ্যই উচিত বিষয়গুলো আমাদেরকে জাননো। স্বল্প সময়ে বাড়ি ভাড়া নেয়া ভাড়াটিয়াদেরকে ভালভাবে যাচাই বাছাই করতে হবে। নারায়ণগঞ্জে জঙ্গীদের কোন ঘর এবং কোন বাড়িকে জঙ্গী আস্তানা বানাতে আমরা দেবো না।

মঈনুল হক বলেন, জঙ্গীবাদ নির্মূলের আমাদের মূল উদ্দেশ্য হলো আমাদের আবাসস্থলে আমরা কতটুকু নিরাপদ আছি। আপনারা যে বাড়িতে অথবা যে জায়গায় থাকছেন সেটা কতটুকু নিরাপদ। এক কথায় বলা যেতে পারে এই জঙ্গীবাদ নির্মূলের বিষয়ে সাধারন নাগরিকেদের তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে।

আমাদের এই কার্যক্রমকে কয়েকটি ভাগে ভাগ করা হবে। প্রতিটি থানায় এটা করা হবে। নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার মহানগর এলাকাগুলোতে মোট ৩১টি সেক্টরে এই কার্যক্রম চালানো হবে। ৩১টি মোবাইল টিম আজ থেকে একযোগে তাদের কার্যক্রম শুরু করবে। পাশাপশি পর্যায়ক্রমে উপজেলা গুলোতে এই কার্যক্রম চলবে। মূল যে সহযোগিতাটি আমি চাচ্ছি সেটা হলো আমাদের অফিসারগন অনেক এলাকা সম্পের্কে তেমন একটা অবগত নেই। আপনারা নিজ নিজ এলাকা সম্পর্কে ভাল জানেন। আপনার এলাকায় আপনার প্রতিবেশী কারা। কারা বিভাবে সেখানে অবস্থান করছেন। ইতিপূর্বে জঙ্গীদের ইতিহাস থেকে আমরা জানতে পেরেছি তাদের লক্ষনগুলো কি কি।


এ সময় তিনি আরো বলেন, জঙ্গী নির্মূলে আমাদের দুটি কাজ একসাথে হবে। আর তা হলো এই তথ্য সংগ্রহের ফলে ধরা পরতে পারে কোন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী অথবা মাদক সেবী। মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবীদের তালিকা ইতিমধ্যেই তৈরী করা হচ্ছে। নারায়ণগঞ্জ হলো প্রাচ্যের ডান্ডি খ্যাত একটি ঐতিহ্যের জেলা। আর এই ঐতিহ্য পূণরুদ্ধারের দায়িত্ব আপনার আমার সকলের। নিজেকে নিরাপদে রাখতে হবে পাশাপশি অন্যকেও নিরাপদে রাখতে হবে। পরে জেলা পুলিশ সুপার মঈনুল হক নাসিক ১৭নং ওয়ার্ডের কয়েকটি বাড়িতে ভাড়াটিয়া নিবন্ধন ফরম বিতরন করেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোস্তাফিজুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক-সার্কেল) শরফুদ্দীন, নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আসাদুজ্জামান, সদর মডেল থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আব্দুর রাজ্জাক, জেলা কমিনিউটি পুলিশের সভাপতি ডাঃ শাহ নেওয়াজ, কমিনিউটি পুলিশের নারায়ণগঞ্জ মহানগর এর সভাপতি এম সোলেয়মান, নাসিক ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু, নাসিক ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ কবির হোসাইন, নাসিক ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জমশের আলী ঝন্টু, আলীরটেক ইউপি চেয়ারম্যান মতিউর রহমান মতি, সাবেক কাউন্সিলর কামরুল হাসান মুন্না প্রমূখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here