নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞার কারনে সিটি কর্পোরেশন এলাকায় কুকুর নিধন করা সম্ভব না জানিয়ে নগরবাসীকে নিজ উদ্যোগে কুকুর মেরে ফেলার পরামর্শ দিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্রধাণ স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা: শেখ গোলাম মোস্তফা।
স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও জনগনের অংশগ্রহন নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে জাইকার অর্থায়নে চলমান সিটি গভার্ণেন্স (সিজিপি) এর আওতায় ১৩ নং ওয়ার্ডের উন্মুক্ত আলোচনায় উপস্থিত নাগরিকদের কুকুর বিড়ম্বনার তিনি এ পরামর্শ দেন।

সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) বিকেলে মাসদাইরস্থ ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের কার্যালয়ে এ উন্মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

উন্মুক্ত আলোচনায় ১৩ নং ওয়ার্ডের জনগন কুকুরের যন্ত্রনায় অতিষ্ঠ হওয়ার কথা জানালে তাদের উদ্দেশ্যে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্রধাণ স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা: শেখ গোলাম মোস্তফা বলেন, হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা থাকায় সিটি কর্পোরেশনের পক্ষে কুকুর নিধন সম্ভব না। হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা না থাকলে আমি একদিনে সব কুকুর মেরে শেষ করে দিতে পারতাম। কিন্তু তাহলে মামলা হবে আমার আর কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে। তবে আপনারা নগরবাসী সবাই মিলে যদি এলাকার কুকুর মেরে ফেলেন তবে আইন দিয়ে বেঁধে রাখতে পারবে না, পুলিশ কিংবা সিটি কর্পোরেশনও কিছু করতে পারবে না। এটাই এখন নগরবাসীর শেষ ভরসা। এছাড়া আপাতত কিল্প কোন পথ খোলা নেই। আমি যখন তারাবো পৌরসভায় দায়িত্বরত ছিলাম তখন একটি এলাকার মানুষ কুকুরের জ¦ালায় অতিষ্ঠ হয়ে একদিনে প্রায় দেড়শ কুকুর মেরে ফেলেছে। এভাবে আপনারাও চেষ্টা করে দেখতে পারেন।

১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ ও ১৩, ১৪ ও ১৫ নং ওয়ার্ডের সংরিক্ষত আসনের নারী কাউন্সিলর শারমিন হাবীব বিন্নি উন্মুক্ত আলোচনায় অংশ নিয়ে উপস্থিত ওয়ার্ডবাসীর বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের সহকারী প্রকৌশলী শফিউল আলম, জাইকার প্রতিনিধি তাজরিফ রহমতউল্লাহ, স্থানীয় মুরুব্বি আ: মতিন, আবুল হোসেন পটল, শাহবুদ্দিন খন্দকার, শেখ মো: আমানসহ ১৩নং ওয়ার্ডবাসী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here