নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, ফতুল্লা প্রতিনিধি: আবারও গত ২০অক্টোবর হতে সকাল থেকে পরের দিন (২১ অক্টোবর) পর্যন্ত টানা বর্ষনে ফতুল্লার লালপুর, পৌষার পুকুরপাড়, চৌধুরীবাড়ি, দাপাইদ্রাকপুর, ভোলাইল, কাশীপুর, দাপাইদ্রাকপুর ঋষিবাড়ি, সেহাচর, কুতুবপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টির পানি জমে কৃত্রিম বন্যায় পরিনিত হয়েছে।
আর ঐ সকল এলাকার পানি বন্দি মানুষগুলো মানবতর ভাবে জীবন যাপন করছে বলে জানায় এলাকাবাসী।

এলাকা সূত্রে জানাযায়, ফতুল্লার লালপুর,পৌষারপুকুর পাড়,চৌধুরীবাড়ি সড়ক সহ বড়ি ঘরে পানি ঢুকেগেছে।

পাকিস্তানীখাদ, আলআমিনবাগ, গাবতলী, কোতালেরবাগ, সেহাচর, সস্তাপুর, কায়েমপুর, মাহমুদপুর, রসূলপুর, দাপাইদ্রাকপুর, পোষ্ট অফিস সরদারবাড়ি মসজীদ, আলীগঞ্জ রেল লাইন, ফতুল্লার ব্যাংক কলোনী সড়ক, পিলকুনি ,তক্কার মাঠ, ধর্মগঞ্জ, নরসিংপুর, মুসলিম নগর, ভোলাইল, কাশীপুর, ওয়াবদার পুল, মাসদাইর,ইসদাইরসহ বেশ কয়েকটি এলাকা পানিতে অনেকের ঘর বাড়িতে পানি উঠে বানি বন্দিতে বসবাসে বিঘœ জীবন যাপন ও চলাচলে ঘটছে।

এছাড়া খাবার পানি ও স্কুল মাদ্রাস্ওা অনেকগুলো ডুবে গেছ্।ে দাপা ঋষিবাড়ি মন্দিরে পানি ঢুকেছে। সেখানকার হিন্দু সম্প্রদায় লোককেরা তাদের ধর্ম পালন করতে পারছে না। মন্দিরে পানি আর পানি। ফতুল্লার লালপুরে অনেকের বাড়িতে পানি টিউবওয়েল ও রান্না ঘরও পানিতে ডুবে গেছে ।

১৯ অক্টোবর গভীর রাত হতে মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছে। আর এই বৃষ্টি আজও অবিরাম ধারায় বৃষ্টি ঝড়ছে। কুতুবপুর দেলপাড়া এলাকায় নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের সাংসদ আলহাজ্ব এ,কে,এম শামীম ওসমান ডিএনডি বাস্তবায়ন লক্ষের বিশাল সমাবেশের পরের দিনই বৃষ্টি আর বৃষ্টি।

জলাবদ্ধতার নিষ্কাশনের জন্য আগামী ২ সপ্তাহের মধ্যে ডিএনডি’র কাজ শুরু করার ঘোষনা দেয়। কিন্তু নিয়তির কি পরিহাস একদিন পর হতে ফতুল্লা সিদ্ধিরগঞ্জসহ বিভিন্ন এলাকায় অবিরাম বৃষ্টি ঝড়ে আবারও জলাবদ্ধতা ও পানি বন্দি আছে ফতুল্লার হাজার হাজার মানুষ।

ফতুল্লার বিএনপির বেশ কয়েকজন নেতা জানান, চার দলীয় জোট ক্ষমতায় থাকাকালীন সাবেক সাংসদ আলহাজ্ব মোহম্মদ গিয়াস উদ্দিন জলাবদ্ধতা দূর করতে বেশ কয়েকটি পাম্প বসিয়ে ছিল। এমনকি দাপা ঋষিবাড়ির সামনে গরুর হাটের সাথে পাম্প বসিয়ে পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা করেছিলেন। তা ফতুল্লাবাসী জানেন। কিন্তু শাহ আলম সাহেব ফতুল্লার ছেলে এরপরও ফতুল্লা লালপুর, পৌষার পুকুর পাড় বাসীর জন্য পাম্প বসালেও আজ তা বন্ধ আছে। লোক দেখানো জনসেবা করে আগামীতে এমপি হতে পারবেন না।

এব্যাপারে সদর উপজেলার চেয়ারম্যান এ্যাড. আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস বলেন, কয়েক দিনের মধ্যে জলাবদ্ধতার সমস্যা সমাধান করবেন আমাদের এমপি মহোদয়।

পানি বন্দিবাসীর দাবী, আমাদের এমপি শামীম ওসমান সাময়িক ভাবে জলাবদ্ধতার দূর করতে কয়েকটি পাম্প বসালে কিছুটা হলেও বর্তমান মানুষের চলাচলের রাস্তাঘাটগুলো পানি মুক্ত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here