নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি, আড়াইহাজার প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার মেঘনা নদী বেষ্টি দুর্গম এলাকা কালাপাহাড়িয়ার হাজিরটেক গ্রামে জামাতার দেয়া ইটের আঘাতে শ্বশুর জাফর (৬০) খুন হয়েছেন। সে ওই এলাকার মৃত সুরুজ মিয়ার ছেলে।

শনিবার (২১ অক্টোবর) সকাল ৮টায় এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জামাতা মূছাকে আটক করে জনতা পুলিশে দিয়েছেন। সে ওই এলাকার গোলাম মোস্তার ছেলে।

কালাপাহাড়িয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনর্চাজ ইমানুর রহমান নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে জানান, ১৪ বছর আগে জাফরের মেয়ে খাইরুনের সাথে একই এলাকার গোলম মোস্তফার ছেলে মূছার বিয়ে হয়। এরই মধ্যে তাদের সংসারে এক ছেলে ও এক মেয়ে জন্ম নিয়েছে। তবে বিয়ের পর থেকে নানা পারিবারিক বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব ছিল। এরই জের ধরে প্রায় সময় খাইরুনকে মারধরও করা হতো।

তিনি আরও জানান, নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ১২ দিন আগে খাইরুন বাবার বাড়িতে চলে আসে। ঘটনার শনিবার সকালে জামাতা মূছা মিয়া তার স্ত্রীকে ফিরে নিতে শ্বশুর বাড়িতে আসেন। এসময় তার শ্যালক শুকুর আলীর সাথে তার বাগবিতন্ডার ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে শ্বশুর জাফর আলী এগিয়ে আসলে মূছার একটি ইট দিয়ে তার বুকে আঘাত করে। এতে তিনি মাটিতে লুটে পড়েন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি সেবা কেন্দ্রে নিয়ে গেলে সেখানে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

আড়াইহাজার থানার ওসি এমএ হক বলেন, জামাতা ও শ্বশুরের মধ্যে ঝগড়ার এক পর্যায়ে ইট দিয়ে আঘাত করা হলে জাফরের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় মূছাকে আটক করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here