নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ডের ঝড়ে পড়া ৩৪০ শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিশেষ অনুদান সাড়ে ১১ লাখ টাকা তুলে দিয়েছেন স্থানীয় কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের সহধর্মিনী আফরোজা খন্দকার লুনা। এর আগে ৮ জানুয়ারী এই ঝড়ে পড়া শিশুদের মধ্যে বিনামূল্যে ৪টি খাতা, পেন্সিল ও বক্স বিতরণ করে করে ছিলেন স্থানীয় কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।

সোমবার (২৯ জানুয়ারী) বেলা ১১টায় গলাচিপা ছোট মসজিদ মাঠে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের রিচিং আউট অব স্কুল চিলড্রেন (রস্ক) ফেইজ-২ প্রকল্পের আরবান স্লাম আনন্দ স্কুলের গলাচিপা ও মাসদাইর দুইটি স্কুলের ৩৪০ শিক্ষার্থী মধ্যে এই অর্থ নগদ প্রদান করা হয়। ফেব্রুয়ারীতে সকল শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্কুল ড্রেস বিতরণ করা হবে ঘোষণা দেয়া হয়।

প্রতি শিক্ষার্থীর জন্য ২৭০০ টাকা করে গলাচিপা শাখার ১৭৩ জন ও মাসদাইর শাখার ১৬৭ জনকে অর্থ প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন, আদর্শ স্কুলের অধ্যক্ষ আজিজুর রহমান, বিশিষ্ট সমাজসেবক আবুল কালাম আজাদ, রিচিং আউট অব স্কুল চিলড্রেন (রস্ক) ফেইজ-২ প্রকল্পের প্রোগ্রাম সুপার ভাইজার (এনসিসি) মোঃ মাহফুজুর রহমান, প্রোগ্রাম সমন্বয়কারী সাহেব বিন শরীফ, প্রোগ্রাম অফিসার মোঃ ইয়াসিন মীর, প্রোগ্রাম লায়লা আক্তার, সোনালী ব্যাংক নারায়ণগঞ্জ কর্পোরেট শাখার সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার শাহ তৌফিক ইমাম, অফিসার সুমন সরকার, এওজি ক্যাশ-২ মোতালেব হোসেন সরকার, মাসদাইর আরবান স্লাম আনন্দ স্কুলের গভনিংবডি সভাপতি সাইফুর রহমান প্রধান ও গলাচিপা আরবান স্লাম আনন্দ স্কুলের গভনিংবডি সভাপতি শওকত খন্দকার প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি আফরোজা খন্দকার লুনা শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, এখানে শিক্ষার্থীরা তাদের নিজের নাম স্বাক্ষর করে টাকা নিচ্ছে দেখে খুব ভালো লাগছে। শিক্ষা জাতি মেরুদন্ড, তোমরা সুন্দর লেখনিতে আগামীতে দেশের উজ্জল ভুমিকা পালন করবে। নারায়ণগঞ্জের অনেক ঝড়ে পড়া শিশু রয়েছে যারা স্কুলের প্রাঙ্গণে যেতে পারে না বা তার পরিবার ইচ্ছুক নয়। তাদেরকে খুজে কাউন্সিলর খোরশেদ আরমান স্লাম আনন্দ স্কুলে ভর্তি করিয়ে ভালো শিক্ষাদানে পরিচালনা করে যাচ্ছে। বছর শুরুতে তারা বিনামূল্যে বই পেয়েছে, আজ প্রতিজনে ২৭০০ টাকা করে পাচ্ছে, সাথে ফেব্রুয়ারী মাসেই স্কুলের ড্রেস পাবে। বলতে গেলে, এখন আর শিক্ষাদানের কোন টাকা পয়সা লাগে না, উল্টো টাকা পাওয়া যায়। আজ যারা টাকা পাচ্ছেন, তারা কিন্তু চলতি বছরের শিক্ষাদানের জন্য পাচ্ছে না। যারা ২০১৭ সালে এপ্রিল-ডিসেম্বরে এই স্কুলের শিক্ষার্থী ছিলেন ও উত্তীর্ণ হয়েছে তারা পাচ্ছেন।

রিচিং আউট অব স্কুল চিলড্রেন (রস্ক) ফেইজ-২ প্রকল্পের প্রোগ্রাম সুপার ভাইজার (এনসিসি) মোঃ মাহফুজুর রহমান, সরকার শিক্ষাদানের প্রচুরভাবে কাজ করছে। যারা শিক্ষা নিতে চাচ্ছে না তাদের অবশ্যই স্কুলের নেয়ার জন্য সকল চেষ্টা করা হচ্ছে। সেই চেষ্টার মধ্যে এই প্রকল্পটি একটি উদাহরণ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here