নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ মহাসড়কের পঞ্চবটী থেকে থেকে পাগলা পর্যন্ত চলাচলরত প্রায় ৫শ’ ইজিবাইক থেকে দৈনিক চাঁদা আদায়ের লক্ষ্যে ট্রাফিক পুলিশের সামনেই ধারালো দা ও স্টীলের লাঠি হাতে সশস্ত্র মহড়া দিচ্ছে অটোরিক্সা মালিক সংগ্রাম পরিষদ নামক সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক বরিশাইল্যা আজিজুল বাহিনীর সদস্যরা বলে অভিযোগ করেছেন সাধারন ইজিবাইক চালক শ্রমিকরা।
যার সত্যতাও মিলেছে সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শনে। দেখাগেছে, সকাল থেকে রাত অবধি বিভিন্ন পয়েন্টে ধারালো দেশীয় অস্ত্র হাতে পঞ্চবটী টু পাগলা চলাচলরত ইজিবাইক থেকে ৬০ টাকা করে চাঁদা আদায় করছে অটো সংগ্রাম পরিষদের চাঁদাবাজরা।

যাদের নিয়ন্ত্রণ করছেন, গার্মেন্ট শ্রমিক থেকে ইজিবাইক চালক শ্রমিক নেতা বনে যাওয়া আজিজুল হক ওরফে বরিশাইল্যা আজিজ।

উক্ত রুটে চলাচলরত একাধিক ইজিবাইক চালক অভিযোগ করেন, প্রতিদিন এসকল সশস্ত্র চাঁদাবাজদের ৬০ টাকা করে চাঁদা প্রদান করতে হচ্ছে। কোনদিন চাঁদা প্রদানে অস্বীকৃতি জানালে সশস্ত্র হাতে চাঁদাবাজরা ট্রাফিক পুলিশের সামনেই গাড়ীতে আঘাত করে। কখনো গাড়ীর গ্লাস ভেঙ্গে ফেলে। আবার সিটও উপড়ে ফেলে। ফলে বাধ্য হয়ে চাঁদা দিয়েই চলাচল করতে হচ্ছে তাদের।

জানাগেছে, ইজি বাইক থেকে আসে কাঁচা টাকা। জেলায় মালিক শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদের আওতাভূক্ত ইজি বাইক রয়েছে কমপক্ষে ৩ হাজার। অপরদিকে, তিন চাকা বিশিষ্ট আধুনিক প্যাডেল চালিত রিক্সা (ব্যাটারী যুক্ত) রয়েছে প্রায় ৭ হাজার। ইজি বাইকগুলো প্রতিদিন মালিক শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদের নেতা কর্মীদের চাঁদা দেন ৬০ টাকা করে। আর প্যাডেল চালিত ব্যাটারী রিক্সা চালকেরা দেয় ১শ’ টাকা।

এব্যাপারে জানতে অটোরিক্সা মালিক চালক সংগ্রাম পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক আজিজুল হকের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি মুঠোফোন রিসিভ করেননি।

আর ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুর রশিদ পিপিএম নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে জানান, পঞ্চবটীর পর থেকে আমাদের কোন ট্রাফিক পুলিশ নেই। যেহেতু লোকবল সংকট, সেহেতু চাঁদাবাজি নিয়ন্ত্রণে আমরা কোন পদক্ষেপ নিতে পারছিনা। এই বিষয়টি ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ দেখভাল করছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here