নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জের একটি এরিয়াকে ‘মিনি টেকনাফে’ পরিনতকারী যেই দূর্ধর্ষ সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী মনিরুজ্জামান শাহীন ওরফে বন্দুক শাহীনের সন্ধান পেতে হন্য হয়ে এতদিন খুঁজছিল আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী, সেই অপরাধ জগতের মুকুটহীন স¤্রাটই অবশেষে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)র সাথে ‘বন্দুক যুদ্ধে’ হয়ে গেল পরবাসী।
শুক্রবার (১৩ অক্টোবর) ভোর ৩ টা ১০ মিনিটে শহরের শহরের গলাচিপা বোয়ালিয়া খাল এলাকায় নিজ বাড়ীর সামনেই নিহত হন বন্দুক শাহীন।

আর দূর্ধর্ষ মাদক ব্যবসায়ী বন্দুক শাহীন নিহত হওয়ায় বৃহত্তর মাসদাইর বাসীর বহু বছরের কাঙ্খিত, মাদক মুক্ত সমাজ গড়ায় সহায়ক হবে বলে মন্তব্য করেন সচেতন নগরবাসী।

এদিকে, শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী বন্দুক শাহীন নিহত হওয়ার ঘটনায় নারায়ণগঞ্জের তরুণ যুব সমাজ ধ্বংসের কবল থেকে মুক্তি পেতে যাওয়ায় শুক্রিয়া আদায় করে বাদ জুম্মা গলাচিপাস্থ বিভিন্ন মসজিদে জেলা ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: মাহবুবুর রহমানের জন্য দোয়া ও সনাতন ধর্মালম্বী অভিভাবকেরা মন্দিরে প্রার্থণা করেন। পাশাপাশি বিভিন্ন অলিগলিতে মিষ্টি বিতরন করা হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক অভিভাবক বলেন, ‘বন্দুক শাহীনের মৃত্যুতে সাংসদ শামীম ওসমানের মাদকের বিরুদ্ধে জেহাদের প্রথম প্রতিফলন ঘটিয়েছে ডিবি পুলিশ। ওসি মাহবুবুর রহমানসহ সংগীয় ফোর্স এই সমাজ থেকে মাদকের গোড়া উৎপাটন করলেও, এখন যেই পরগাছা গুলো রয়েছে, সেগুলোও দ্রুত ছাঁটাই করে সাংসদ শামীম ওসমানের প্রত্যাশিত মাদক মুক্ত নারায়ণগঞ্জ গড়ায় ডিবি পুলিশ আরো অগ্রসর হবেন বলে আমাদের প্রত্যাশা।’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here