নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: সিদ্ধিরগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতাকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে অপহরণের আড়াই ঘন্টা পর উদ্ধারের রহস্য এখনো উন্মোচন করতে পারেনি সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ। অপহরণকারীরা কি আসলেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ছিল নাকি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে কোন সন্ত্রাসী বাহিনী ছিল, এটাও এখনো নিশ্চিত নয় পুলিশ।
তাই ঘটনার ছয় দিনেও পুলিশ অপহরণকারীদের সনাক্ত করতে না পাড়ায় আতংকে দিন কাটাচ্ছে ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম সাকিব।

জানাগেছে, গত ১৫ সেপ্টেম্বর সিদ্ধিরগঞ্জের ৩নং ওয়ার্ডর সভাপতি ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক উপ-গ্রন্থনা ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সাকিবকে সিদ্ধিরগঞ্জের রসূলবাগ বটতলা এলাকা থেকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার আড়াই ঘন্টা পর রূপগঞ্জের রূপসী এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়। জাহাঙ্গীর আলম সাকিব সিদ্ধিরগঞ্জের রসূলবাগ এলাকার মুক্তিযোদ্ধা গিয়াস উদ্দিনের ছেলে।

ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম সাকিব জানায়, অপহরণকারীরা ডিবি পুলিশ পরিচয়ে অপহরণ করলেও তাদের আচারণ পুলিশের মত ছিল না। অপহরণকারীরা আমাকে বলেছে, রাজনীতি তো ভালই করছ, এখন তরে ক্রোসফায়ার করে দিলে তর তো কিছু করার থাকরে না। এসময় তারা আমার চোখে কিছু একটা ছিটিয়ে দিলে আমি চোখে অস্পষ্ট দেখতে থাকি। আমাকে উদ্ধার করার পর সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশকে অপহরণকারীদের সম্পর্কে আমি বিস্তারিত বলেছি।

জানাগেছে, ছাত্রলীগ নেতা হিসেবে জাহাঙ্গীর আলম সাকিবের বেশ সুনাম রয়েছে। সাধারণ শিক্ষার্থীদের পাশে থেকে সব সময় তাদের সেবা করে আসছে। সম্প্রতি একটি মহল জাহাঙ্গীর আলম সাকিবকে নিয়ে নানা ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ রয়েছে। ষড়যন্ত্রকারীরা জাহাঙ্গীর আলম সাকিবের বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার করে তাকে রাজনৈতিক ভাবে হেও করার পায়তারা করছে বলে অভিযোগ রয়েছে। তাই সব মিলিয়ে বর্তমানে আতংকে দিন কাটাচ্ছেন জাহাঙ্গীর আলম সাকিব।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here