নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: ‘স্যার আমরা আপনার মেয়ের মত, আমাদেরকে আপনার মেয়ের মত দেখবেন, আমাদেরকে আপনি বাঁচান।’ নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো: রাব্বী মিয়ার পা ধরে করজোড়ে অশ্রুনয়নে এভাবেই আকুতি জানান, শহরের ডিআইটিস্থ মর্গ্যাণ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর নির্বাচনী পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা।
মঙ্গলবার (৭ নভেম্বর) সকাল ১১ টায় ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিতব্য এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণের অনুমতি প্রদানের দাবী জানিয়ে অনুত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়ার নিকট স্মারকলিপি প্রদানকালে এই দৃশ্যের অবতারনা হয়।

এরপর জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া ছাত্রীদের কাছে জানতে চান, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বিষয়টি জানেন কিনা। প্রতিউত্তরে ছাত্রীরা বলেন, ‘স্যার আমরা উনার বাসায় গিয়েছিলাম, কিন্তু উনি আমাদের কোন কথা না শুনে আমাদের বের করে দেন এবং খারাপ আচরন করেন।’

পরবর্তীতে ডিসি তাৎক্ষনিকভাবে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও বিদ্যালয়ের ম্যানিজিং কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেনকে মুঠে ফোনে বিষয়টি জানান। এ সময় কয়েকজন ছাত্রী কান্নারত অবস্থায় ডিসির পায়ে ধরে বলতে থাকেন, ‘স্যার আমাদেরকে আপনি বাচাঁন।’


তারপর ডিসি স্কুলের প্রধান শিক্ষক অশোক কুমার তরুকে ফোন করে প্রশান করেন, ‘এতো ভাল একটা স্কুল তাহলে এতো বেশী ফেল করলো কেন? আপনার স্কুলের শিক্ষকরা তাদের দায়িত্ব ঠিক ভাবে পালন করেছে, তাদের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে কিনা। নবম এবং দশম শ্রেনীতে এতোদিন এই স্কুলে পড়াশোনা করে কি কারনে রেজাল্ট তারা এতো খারাপ করলো?’

বিষয়টি তার কাছে এসে বিস্তারিত জানানোর নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া। এরপর প্রধান শিক্ষক ডিসির সাথে সাক্ষাত করে সার্বিক বিষয়ে অবগত করেন।

এরআগে জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া ছাত্রীদের আশ^স্ত করে বলেন, ‘বিষয়টি আমরা দেখবো কি করা যায়। তোমরা বাড়ী যাও।’
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক একাধিক ছাত্রীরা জানান, তাদের গণিত পরীক্ষার প্রশ্ন পত্র তাদের কারোরই কমন পরেনি।

এসএসসির নির্বাচনী পরীক্ষায় ৩/৪টি বিষয়ে অকৃতকার্য্য হওয়ায় আসন্ন ২০১৮ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করতে দেওয়া হবে না, বিদ্যালয়ের এমন সিদ্ধান্তে ছাত্রীরা উদ্বিগ্ন হয়ে মিছিল সহকারে জেলা প্রশাসকের বরাবরে একটি লিখিত স্মারকলিপি প্রদান করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here