নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: জাতীয় মহিলা সংস্থা নারায়ণগঞ্জ জেলার চেয়ারম্যান ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ¦ শামীম ওসমানের সহধর্মিনী সালমা ওসমান লিপি বলেছেন, ‘২০০৪ সালের ২১শে আগষ্ট গ্রেনেড হামলাকারীদের এদেশে ক্ষমা নাই। ভবিষ্যৎ প্রজন্মরা যেন কিছু জানতে না পারে সেদিন সেই লক্ষ্যই ছিলো ঘাতকদের।’
বৃহস্পতিবার (২৪ আগষ্ট) বিকাল ৪টায় চাষাড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগ নারায়ণগঞ্জ মহানগর শাখার আয়োজনে ২১শে আগষ্ট গ্রেনেড হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠানের প্রধান আলোচক হিসেবে তিনি এসব কথা বলেন।

লিপি ওসমান আরো বলেন, ‘সত্যকে কখনো কবর চাপা দেওয়া যায় না। সত্য চিরকাল সত্যই থাকে আর মিথ্যা চিরকাল মিথ্যাই থাকে। ইমান হলো মানুষের শ্রেষ্ঠ আমানত। আপনাদের পরিবার-পরিজন, সন্তানাদি হলোও আমানত। আমি আপনাদের মতই কথা বলি আর আপনাদের কাছে যেতে চাই। আমি এই শহীদ মিনারে দাঁড়িয়ে আপনাদের প্রশ্ন করতে চাই কারো পিছনে কারো লাগতে হবে কেন? আমরা তো মানুষ। আমাদের ভিতরে রয়েছে মনুষত্ব।’

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন, ‘যারা ভুল করেছে তাদেরকে একদিন এই শামীম ওসমানের কাছে ফিরে আসতে হবে। আপনারা যদি কারো দ্বারা কোন প্রকার বিভ্রান্ত হয়ে থাকেন তাহলে সত্যের জন্য প্রতিবাদ করবেন। আমিও চাই আপনার মঞ্চে উঠে দাঁড়িয়ে বক্তব্য রাখেন, আমি চাই আপনারাও নেতৃত্ব দেন। আমার বড় অস্ত্র হলো জায় নামাজ আর তজবি। আমি কারো কাছে নয় একমাত্র আল্লাহর কাছে বিচার দেই।’

সালমা ওসমান লিপি বলেন, ‘এই শহীদ মিনারে দাঁড়িয়ে আমি প্রথমবার কথা বলছি। এই পবিত্র শহীদ মিনারকে আজ মিথ্যা আর অপপ্রচার দিয়ে কলঙ্কিত করা হয়েছে। যারা ভাষার জন্য নিজেদের প্রাণ দিয়ে গেছেন তাদের মূল্যায়ন আমরা কতটুকু রাখতে পেরেছি সেই দিকটা আমাদের ভাবতে হবে। সবাই বলে ওসমান পরিবার আমার, আমি বলবো এটা নারায়ণগঞ্জবাসীর সকলের পরিবার। বার বার শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র¿ করা হয়েছে। তার স্ত্রী হিসেবে নয়, একজন মানুষ হিসেবে খুব কাছ থেকে দেখা থেকে বলছি, শামীম ওসমান একজন ধার্মিক ভাল মানুষ। তিনি একজন আদর্শ বাবা, একজন ভাল সন্তান।’

তিনি আরো বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে দেশে স্বাধীনতা এনে দেবার জন্য চলে যেতে হয়েছে আপনারা সকলেই তা জানেন। নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ শামীম ওসমান এলাকায় কি কি উন্নয়ন করেছেন তা আপনারাই ভালো জানেন। শহরের টানবাজার পতিতালয় উঠিয়ে দেওয়ার জন্য তাকে হুমকির সম্মূখীন হতে হয়েছে। যারা মিথ্যাচার আর ষড়যন্ত্র করছেন, তাদেরকে বলবো মানুষের সাথে কখনো প্রতারনা করবেন না। নিজেদের মনুষত্ত্বটুকু একটু হলেও রাখুন। আমি অনুরোধ করে বলতে চাই শোকের মাসের আয়োজন যেন কোন চক্রান্তকারীদের দ্বারা পালন করা না হয়। আপনারা নিদেজের বিবেককে একবার হলেও প্রশ্ন করে তাকে জাগ্রত করে তোলার চেষ্টা করেন।’

বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগ নারায়ণগঞ্জ মহানগর শাখার সভাপতি ইসরাত জাহান স্মৃতির সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূইয়া সাজনু, মহানগর স্বেচ্ছা সেবকলীগের সভাপতি মোঃ জুয়েল হোসেন, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগ এর সভাপতি প্রফেসর ড. শিরিন বেগম, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক এড. নূর জাহান বেগম, মহানগর মহিলা আওয়ামীলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা আমেনা খাতুন, কামরুন নাহার মিতালী, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সাফায়েত আলম সানি প্রমূখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here