নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: দলগত মত বিরোধ থাকলেও রাজনীতিতে যে তারা সহাবস্থান বজায় রেখে চলতে চান, তারই একটি অনন্য নজির স্থাপন করলেন বিএনপি চেয়ারপার্সন এড. তৈমূর আলম খন্দকার ও নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের সাংসদ আলহাজ¦ এ কে এম শামীম ওসমান।
একসাথে টক শোতে বসায় পুলিশ গ্রেফতারের পর হিরো বনে যাওয়ায় তৈমূরের কাছ থেকে সুযোগ বুঝে হাজার টাকা বকশিস আদায় করে নেন শামীম ওসমান।

মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারী) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন চলাকালীন সময়ে আদালত পাড়ায় এমনই দৃশ্যের দেখা মিলে।

তৈমূর আলমকে দেখে শামীম ওসমান বলেন, ‘কি তৈমূর ভাই আপনে তো ‘হিরো’ হইয়া গেলেন? আমার সাথে টক শোতে বসার পর পুলিশের হাতে গ্রেফতার হইয়া এখন হিরো হইয়া গেছেন। দেন এখন আপনাকে হিরো বানানোর বকশিস দেন?’

তখন তৈমূর আলম খন্দকার পকেট থেকে নগদ ১ হাজার টাকা বের করে শামীম ওসমানকে বকশিস হিসেবে প্রদান করেন।

উল্লেখ্য, গত ২১ জানুয়ারী একটি বেসরকারী টেলিভিশনের টক শোতে অতিথি হিসেবে গিয়েছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমান ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এড. তৈমূর আলম খন্দকার। সেইদিন টক শোতে একপর্যায়ে তৈমূর তার বিরুদ্ধে দু’টি মামলায় ওয়ারেন্ট থাকার কথা স্বীকার করেন।

এরপর গত ২৩ জানুয়ারী নারায়ণগঞ্জ আদালত পাড়ায় বিএনপি পন্থী আইনজীবীদের নির্বাচনী প্রচারনাকালে গ্রেফতার হন বিএনপি চেয়ারপার্সণের উপদেষ্টা এড. তৈমূর আলম খন্দকার। আদালত সংলগ্ন আইনজীবীদের চেম্বারের কাছ থেকে টেনে হিচরে ফতুল্লা থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। এ সময় এড. তৈমূরকে রক্ষা করতে গিয়ে পুলিশের হামলায় আহত হন কয়েকজন আইনজীবী।

তার দু’দিন পর রহাইকোর্ট থেকে জামিন পাওয়ার পর তৈমূর আলম অভিযোগ করেছিলেন, টক শোতে শামীম ওসমানের সাথে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের কারনেই তাকে জেলে যেতে হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here