প্রেস বিজ্ঞপ্তি: আগামী ৬ মার্চ ২০১৮ তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যার পাঁচ বছর। এই পাঁচ বছরেও ত্বকী হত্যার অভিযোগপত্র আদালতে প্রদান করা হয় নাই। অথচ হত্যাকান্ডের এক বছর না যেতেই মামলার তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাব সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছে যে, ওসমান পরিবারের ঘাতকরা ত্বকীকে আজমেরী ওসমানের টর্চারসেলে নিয়ে ১১ জন মিলে হত্যা করেছে এবং পরে আজমেরী ওসমানের গাড়িতে করে তারা ত্বকীর লাশ নিয়ে শীতলক্ষ্যা নদীতে ফেলে দিয়েছে। এ সংবাদ সম্মেলনের পূর্বে ঘটনার বিশদ বিবরণ দিয়ে এক ঘাতক আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ি কোনও অপরাধ সংঘটনের ৯০ দিনের মধ্যে আদালতে অভিযোগপত্র প্রদানের বাধ্যবাদকতা থাকলেও পাঁচ বছরেও ত্বকী হত্যার অভিযোগপত্র দেয়া হয় নাই। এ হত্যা কান্ডে সরকারের সাথে সম্পৃক্ত ওসমান পরিবার জড়িত থাকার কারণেই অভিযোগপত্র প্রদান করা হচ্ছে না বলে আমরা মনে করি। আর তাই হত্যাকান্ডের সকল রহস্য উদ্ঘাটিত হবার পরেও আদালতে অভিযোগপত্র দিয়ে বিচার প্রক্রিয়া শুরু করা হয় নাই। এইটিকে আমরা সুশাসন বা স্বাধীন বিচার ব্যবস্থার নজির মনে করি না। এইটি সরকারের পক্ষপাতমূলক বিচার প্রক্রিয়ার একটি নির্লজ্জ উদাহরণ।

শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারী) সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের সদস্য সচিব কবি হালিম আজাদ স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রেরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান, ত্বকী হত্যার পাঁচ বছর উপলক্ষে চার দিনের বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে। ৬ মার্চ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে আটটায় তানভীর মুহাম্মদ ত্বকীর কবর জিয়ারত ও ফাতেহা পাঠ, ৭ মার্চ বুধবার বিকেল তিনটায় নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউটে শিশু সমাবেশ ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, ৮মার্চ বৃহস্পতিবার সকাল দশটায় কনফারেন্স লাউঞ্জ, জাতীয় প্রেসক্লাব, ঢাকায় গোলটেবিল বৈঠক এবং ৯ মার্চ শুক্রবার বিকেল সাড়ে তিনটায় দুই নং রেল গেইট চত্ত্বর, নারায়ণগঞ্জে সমাবেশ অনষ্ঠিত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here