নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জে বিদ্যুতের চলমান লোডশেডিংয়ের কারনে উদ্বিগ্ন হয়ে পরেছেন শারদীয় দূর্গোৎসব উদযাপণ কমিটির নেতৃবৃন্দরা। বিদ্যুতের এই সমস্যা এভাবে চলতে থাকলে পূজার পাঁচদিন সীমাহীন দূর্ভোগে পরতে হবে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের এবং সেই সাথে মন্ডপের নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাধাগ্রস্ত হবে বলে মনে করেন তারা। আর তাই শারদীয় দূর্গোৎসব শুরুর আগেই এ সমস্যা সমাধানের দাবী জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের সনাতন ধর্মাবলম্বীরা।

সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা। আর মাত্র কয়েকটা দিন পরই শুরু হবে এই উৎসব। প্রতিমা ও পূজা মন্ডপ তৈরী এবং সাজসজ্জার শেষ মূহুর্তের প্রস্তুতি চলছে। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ঘরে ঘরে বইছে উৎসবের আমেজ। আর উৎসবকে কেন্দ্র করে নিñিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থাও গ্রহণ করেছে প্রশাসন। কিন্তু বর্তমানে ঘন্টায় ঘন্টায় লোডশেডিংয়ের কারনে এক ধরনের শংকায় ভোগছেন নারায়ণগঞ্জে দূর্গাপূজা উযদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দরা। নিরাপত্তার স্বার্থে প্রশাসন থেকে বার বার তাদের পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা করার কথা বলা হলেও এমন ভাবে লোডশেডিং হলে কিভাবে লাইটিংয়ের ব্যবস্থা রাখবেন এ নিয়ে শংকায় ভুগছেন পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দরা। তাই অন্তত পক্ষে শারদীয় দূর্গোৎসবের পাঁচ দিন নারায়ণগঞ্জে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের দাবী জানিয়েছেন পূজা কমিটির নেতৃবৃন্দরা। কেননা, এভাবে লোডশেডিং চলতে থাকলে পূজায় সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থাও ঝুঁকির মধ্যে থাকবে এবং অন্ধকারে যে কোন ধরনের অপ্রিতিকর ঘটনা ঘটতে পারে বলে শংকা প্রকাশ করেছেন নেতৃবৃন্দরা।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শংকর সাহা নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে জানান, সম্প্রতি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে দূর্গা পূজা উপলক্ষে মত-বিনিময় সভায় পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ পূজা চলাকালীন সময়ে শতভাগ বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিতের আশ্বাস দিলেও এখন যেভাবে লোডশেডিং হচ্ছে, তা নিয়ে আমরা চিন্তিত হয়ে পরেছি। পূজার সময় লোডশেডিং হলে পূজা মন্ডপে অনেক সমস্যা হবে। বিশেষ করে সন্ধ্যার পর পূজা মন্ডপগুলোতে দর্শনার্থীদের সমাগম ঘটে। তাই সেই সময় যদি লোডশেডিং হয়ে থাকে তাহলে সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে চুরি, ছিনতাইসহ অপরাধ বেড়ে যাবে এবং অপরাধীরা খুব সহজেই নানা ধরনের অপরাধ করে পার পেয়ে যাবে। তাই ডিপিডিসি এবং পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষকে দূর্গা পূজার পাঁচ দিন শতভাগ বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য বিশেষ করে অনুরোধ জানাই।

একই বিষয়ে মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিখন সরকার শিপন নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে জানান, জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মত বিনিময় সভায় দূর্গোৎসবে নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে বিদ্যুৎ দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। কিন্তু বর্তমানে লোডশেডিংয়ের ভয়াবহ অবস্থায় সকলেই অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন। তবে হয়তো বর্তমানে যান্ত্রিক ত্রুটির কারনেই এমন ভয়াবহ লোডশেডিংয়ের সম্মুক্ষীন হতে হচ্ছে আমাদের। তাই আমরা মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদ থেকে ডিপিডিসি এবং পল্লী বিদ্যুৎ বিতরণ কর্তৃপক্ষকে আবারো অনুরোধ করবো যেন পূজার সময় নিরবিচ্ছিন ভাবে বিদ্যুৎ সরবারহ করে থাকে।

চলমান লোডশেডিংয়ে উদ্বিগ্ন নারায়ণগঞ্জ মহানগর পূজা উদযাপণ পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক উত্তম সাহা নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে বলেন, নারায়ণগঞ্জে সফলভাবে শারদীয় দূর্গোৎসব উদযাপণ করতে আমরা জেলা প্রশাসনের সঙ্গে সভা করেছিলাম। সেই সভায় ডিপিডিসি’র প্রতিনিধি না থাকলেও পল্লি বিদ্যুতের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন এবং কোন প্রকার প্রাকৃতিক দূর্যোগ না ঘটলে পূজার পাঁচদিন নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুত সরবরাহ করার আশ^াস দিয়েছিলেন। কিন্তু বর্তমানে যেভাবে লোডশেডিং চলছে, তাতে করে আসন্ন শারদীয় দূর্গোৎসবকে ঘিরে আমরা উদ্বিগ্ন হয়ে পরেছি। কারন পূজার সময় বিদ্যুত না থাকলে নিরাপত্তা ব্যবস্থাও হুমকির মুখে পরবে। তাই আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে বিষয়টি আশু সমাধানের দাবী জানাচ্ছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here