নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া বলেছেন, আমাদের দেশে যানবাহনের সংখ্যার চেয়ে ট্রাফিক পুলিশের সংখ্যা অনেক কম। আপনাদের সংসারে ছেলে-মেয়েরা কথা না শুনলে যেমন খারাপ লাগে, তেমনি যদি কোন গাড়ির চালক ট্রাফিক সিগনাল না মানলে তখন সেই ট্রাফিক পুলিশদের অনেক বেশী খারাপ লাগে।’
রবিবার (২২ অক্টোবর) সকাল ১০টায় নারায়ণগঞ্জ জেলা সার্কিট হাউস এর সভাকক্ষে ‘সাবধানে চালাবো গাড়ি, নিরাপদে ফিরব বাড়ী’ শ্লোগানে ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস ২০১৭’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রাব্বী মিয়া আরো বলেন, ‘আমাদের দেশে গাড়ির বয়স্ক চালকগন অনেকটা সাবধানতা অবলম্বন করে রাস্তায় গাড়ি চালান। তার কারন তারা যদি বিবাহিত হন তাহলে তাদের স্ত্রী-সন্তানদের জন্য পিছুটান থাকে। গাড়ির চালক বয়স্ক আর সিনিয়র রাখলে ভাল হয়। সবচেয়ে বড় কথা আমাদের ভেতরে সচেতনতা থাকতে হবে। আমাদের মধ্যে রাস্তায় গাড়ি চালানোর সময় প্রতিযোগিতার বিষয়টি খুবই খারাপ একটি দিক। এটাকে পরিহার করতে হবে। মনে রাখবেন গাড়ির চালকগন সচেতন হলে দূর্ঘটনা ঘটবে না।’

তিনি আরো বলেন, ‘মালিকদের দেখতে হবে তারা তাদের গাড়ির চালকদের ভালবাসে কিনা আর নিজের দেশকে ভালবাসে কিনা। আর তা হলেই একজন চালক নিজেকে ভালবাসতে শিখবে। কখনোই আরেকটি গাড়িকে ওভারট্যাকিং করার চেষ্টা করবেন না। সব সময় আপনার ডান পাশের লেনটি ব্যবহার করবেন। বাম পাশের লেনটি খুবই বিপদ জনক। মনে রাখবেন আমাদের মধ্যে অস্থিরতার মানসিকতা পরিবর্তন করতে হবে। আপনি কোন সড়কে আর কোন এলাকায় গাড়ি চালাচ্ছেন সেটা মাথায় রাখতে হবে।

আপনাদের ছেলে-মেয়েদের মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। আপনার সন্তানেরা যেন চালক নয়, গাড়ির মালিক হতে পারে সেদিকে লক্ষ রাখবেন। নিয়নতান্ত্রিকভাবে জীবন যাপন করবেন। সরকার নিষিদ্ধ গাড়িগুলো যেন মহাসড়কের উপর চলাচল করতে না পারে সে লক্ষে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’

জেলা প্রশাসন ও বিআরটিএ নারায়ণগঞ্জ এর যৌথ আয়োজনে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আবদুল হামিদ মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরফুদ্দীন, বিআরটিএ নারায়ণগঞ্জ এর সহকারী পরিচালক মোঃ আব্দুল খালেক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) হারুন-অর-রশিদ, নারায়ণগঞ্জ শাখার মটরযান পরির্দক মোঃ সফিকুল ইসলাম সহ প্রমূখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here