নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এর মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভী বলেছেন, ‘আমরা দুইটি দূর্যোগের সম্মুখীন হয়ে থাকি। এর মধ্যে একটি হলো প্রাকৃতিক দূর্যোগ এবং অপরটি হলো মানুষ কর্তৃক দূর্যোগ। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এলাকাগুলো আগের তুলনায় আমরা জলাবদ্ধতা থেকে কিছুটা হলেও মুক্ত হয়েছে। দূর্যোগ মোকাবিলায় মানুষদেরকে সচেতন করার পাশাপাশি বাচ্চাদেরকেও সচেতন করে গড়ে তুলতে হবে।’
মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) সকাল ১০টায় নারায়ণগঞ্জ ক্লাব মিলনায়তনের তৃতীয় তলায় নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এবং সেভ দ্য চিলড্রেন প্রকল্প সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠান ও অবহিতকরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৫ এবং ১৬ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা এই প্রকল্পের বিষয়ে পূর্ব থেকেই অবগত আছেন। দূর্যোগ মোকাবিলায় ফায়ার সার্ভিসের সাথে নাসিক কর্মীদের ট্রেনিং ইতিমধ্যেই দেয়া হয়েছে। শহরের ভেতরের রাস্তাগুলো ১৩ ফিটেরও অধিক করা দরকার। সিটি কর্পোরেশন এলাকার আমাদের খেলার তেমন মাঠ নেই, আর নেই কোন খোলা জায়গা। খাস কিছু জমি রয়েছে সেগুলোকে যদি খোলা জায়গা হিসেবে তৈরী করা যায় তাহলে বাচ্চারা খেলাধুলা করার সুযোগ পাবে। একট কথা মনে রাখবেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনকে কেউ জায়গা দিতে চায় না, শুধু জায়গা নিতে চায় সকলেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ডেভলাপ গুলোকে আমাদের মাথায় রেখে কাজ করতে হবে।’


আইভী আরো বলেন, ‘বাইরে থেকে লোকজন নারায়ণগঞ্জ সমন্ধে যা ধারনা করেন এখানে এসে দেখতে পায় তা সম্পূর্ণ ভিন্ন। পরিবেশের ভারসম্য এখন নেই। আমরা সরকারের কাজের অংশীদার হয়ে কাজ করে যেতে চাই। রাস্তা, ড্রেন, খেলার মাঠ তৈরী করতে আশাকরি নারায়ণগঞ্জবাসী আমার পাশে থাকবে। আমরা যে যাই দল করিনা কেন, ভালো কাজের সাপোর্ট আমাদেরকে করতে হবে। সরকারের উন্নয়নে দলমত নির্বিশেষে এগিয়ে আসতে হবে।’

সেক্টর ডিরেক্টর হিউমেনেটিরিয়ান (সেভ দ্যা চিলড্রেন) মোঃ মোস্তাক হোসেন এ সময় জানান, ‘যে কোন ধরনের দূর্যোগ মোকাবিলায় আমাদের ভালভাবে প্রস্তুুতি নিতে হবে। তাহলেই জীবন নাশের সংখ্যা অনেকাংশে কম হবে। জাতীয় পর্যায়ে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন এবং নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের বাইরেও আমরা সরাসরি এই প্রকল্পের কাজ করছি। আমরা হসপিটালের চিকিৎসা ক্ষেত্রে কিছু প্রজেক্ট করতে চাচ্ছি। আমাদের দূর্যোগ মোকাবিলার অভিজ্ঞতাগুলো হসপিটালগুলোর সাথে শেয়ার করতে চাই। পাশাপাশি সারা দেশে ছড়িয়ে দিতে চাই। নাসিক ১৫/১৬নং ওয়ার্ডে এই প্রকল্পের কার্যক্রম আমরা হাতে নিয়েছি। এ দুটি ওয়ার্ড নিয়ে আমরা কাজ করতে চাই। সারাদেশে ৬২ হাজার আরবান স্বেচ্ছাসেবী তৈরী করার পরিকল্পনা আমাদের রয়েছে। শহরের ভেতরে একটি দূর্যোগ মোকাবিলা সেন্টার তৈরী করার পরিকল্পনা রয়েছে। পাশাপাশি স্কুল গুলোর ভেতরেও আমরা এই প্রকল্পগুলো চালু করতে পারি। ইউরোপিয়ান কমিশন এই ফান্ডগুলো বরাদ্দ দিয়ে থাকে।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও পরিকল্পনা মন্ত্রনালয়ের উপ-সচিব মোঃ নূরুল আলম।

এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন, সেভ দ্যা চিলড্রেনের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্ক পিয়ার্স, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী এ এম এমএহতেশামূল হক, সেভ দ্যা চিলড্র্নে এর কনসেটিভ ম্যানেজার রনজিত দাস, সিপিডির কান্ট্রি ডিরেক্টর মোসলেমা পারভীন সহ প্রমূখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here