নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: প্রশাসন চাইলেই যে সবকিছুই সম্ভব, তারই একটি উজ্জল দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ প্রশাসন।
বুধবার (১৫ নভেম্বর) সরেজমিন দেখাগেছে, যেই চাষাড়াকে ঘিরে বছরের পর বছর ধরে নগরী জুড়ে অসহনীয় যানজটে দূর্ভোগ পোহাতে হতো জনসাধারনকে, এখন সেই চাষাড়া সড়কটিই রীতিমত যানজটহীন হয়ে পড়ছে। কয়েকদিন যাবত অত্যন্ত সৃশৃংখল ভাবে বিজয়স্তম্ভের আশপাশ ঘুরে যাতায়াত করছে সক প্রকারের যানবাহন। পূর্বের মত এখন আর গাড়ীর চাকা দীর্ঘক্ষণ থামিয়ে রাখতে না হওয়ায় খুব সহজেই উক্ত সড়ক দিয়ে এখন নির্দিষ্ট গন্তব্যস্থলের যাতায়াতের সুযোগ পাচ্ছে নগরবাসী।

যার নেপথ্য কারিগর হচ্ছেন আগামী ইংরেজী ২০১৮ নববর্ষে নগরবাসীকে যানজট মুক্ত নগরী উপহার দেয়ার স্বপ্নদ্রষ্টা নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ একেএম সেলিম ওসমান।

আর সাংসদের স্বপ্ন পূরণে সহায়ক হিসেবে কাজ করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ প্রশাসনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক-সার্কেল) মো: শরফুরদ্দীন। যিনি চাষাড়া এলাকার যানজট নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত ট্রাফিক পুলিশের পাশাপাশি কমিউনিটি পুলিশের ব্যবস্থা করেছেন। ট্রাফিক সিগন্যাল মানতে বিভিন্ন গাড়ী চালকদের সচেতনতার পাশাপাশি সাধারন যাত্রীদের মাঝেও সচেতনতা বৃদ্ধির চেষ্টা চালিয়েছেন।
জানাগেছে, গত ১২ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জেলা সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারনী ফোরাম আইনশৃংখা কমিটির মাসিক সভায় উপদেষ্টা ও সাংসদ সেলিম ওসমান এবং সংরক্ষিত আসনের সাংসদ এড. হোসনে আরা বাবলী নগরীর যানজট নিরসনে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে জেলা প্রশাসনকে জোড়ালো তাগিদ দেন।

আর এজন্য প্রয়োজনে আলাদা সভার আহ্বান করতে জেলা প্রশাসককে অনুরোধ জানান সেলিম ওসমান।

এর পরদিন থেকেই অর্থাৎ ১৩ নভেম্বর থেকে দৃশ্যপট পাল্টাতে শুরু করেছে চাষাড়ার।

এব্যাপারে অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার (ক-অঞ্চল) মো: শরফুদ্দীন নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডিকে জানান, ‘চাষাড়া সড়ককে ঘিরেই মূলত নগরীর যানজটটি সৃষ্টি হতো। তাই এখানে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণে সদ্য অতিরিক্ত পুলিশ ও কমিউনিটি পুলিশ নিয়োজিত করা হয়েছে। পাশাপাশি ট্রাফিক সিগন্যাল মেনেই চালকদের চলাচলে সচেতন করা হচ্ছে। আর ট্রাফিক সিগন্যাল মেনে চালকরাও গাড়ী চালানোর ফলে চাষাড়া সড়কে এখন যানজটের মাত্রা কমে আসছে। আমি আশাবাদী আগামীতে চালকরা ট্রাফিক সিগন্যাল মেনে গাড়ী চালালের আর যানজটের সৃষ্টি হবে না, নগরবাসীকেও দূর্ভোগ পোহাতে হবে না।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here