নিউজ প্রাচ্যের ডান্ডি: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজেদের মধ্যেকার ভুল বুঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র সকল নেতাকর্মী সমর্থকদের ধানের শীষের প্রতি ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র কারাবন্দি সিনিয়র সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান।
সোমবার (১০ ডিসেম্বর) বন্দর উপজেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক শাহীন আহমেদ ঢাকার কেরানীগঞ্জে কেন্দ্রীয় কারাগারে এড সাখাওয়াত হোসেন খানের সাক্ষাতে গেলে তিনি এ আহবান জানান।

এড. সাখাওয়াত নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয় অর্জণের মাধ্যমে বিএনপি চেয়ারপার্সণ বেগম খালেদা জিয়াসহ সারা দেশে বিনা অপরাধে কারাবন্দি নিরপরাধ নেতাকর্মীদের দু:সহ জীবনের অবসান ঘটবে। দীর্ঘ এক যুগ নির্য়াতন আর হামলা মামলা থেকে মুক্তি মিলবে। সেই সাথে দেশের মানুষের হারিয়ে যাওয়া মৌলিক অধিকার ফিরে আসবে এবং দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠিত হবে। তাই এ নির্বাচনকে গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠা এবং গনতন্ত্রের মা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির অগ্নি পরীক্ষা হিসেবে দেখতে। সেই লক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র সকল স্তরের নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে চুড়ান্ত লড়াইয়ে অবতীর্ণ হতে হবে।

তিনি আরো বলেন, বিএনপি বাংলাদেশের একটি বৃহত রাজনৈতিক দল। আর বড় দলের মধ্যে রাজনৈতিক প্রতিযোগিতা থাকাটাই স্বাভাবিক। কিন্তু এই প্রতিযোগিতায় সর্ব প্রথমে বিবেচনায় থাকে বিএনপি’র নির্বাচনী প্রতীক ধানের শীষ। তাই নিজেদের মাঝে যতই মনোমালিণ্য থাকনা কেন, ধানের শীষ রক্ষায় সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার সালাম পৌছে দিতে হবে। নির্বাচনের শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত লড়াই করে বিজয় ছিনিয়ে আনতে হবে।

এড. সাখাওয়াত আশা প্রকাশ করে বলেন, অতীতেও নারায়ণগঞ্জ বিএনপি বিভিন্ন প্রতিকূল পরিস্থিতি সাহসিকতার সাথে মোকাবেলা করে নিজেদের ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধের প্রমাণ রেখেছেন, তারই ধারাবাহিকতায় আসন্ন ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র নেতাকর্মীরা।

প্রসঙ্গত, গত ৫ নভেম্বর শহরের চাষাঢ়া থেকে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খানকে ডিবি পুলিশ আটক করে নিয়ে যায় এবং নারায়ণগঞ্জ সদর থানার একটি নাশকতার মামলায় রিমান্ড চেয়ে আদালতে চালান দেয় পুলিশ, আদালত রিমান্ড আবেদন নামঞ্জুর করে জেল গেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেন। পরের দিন নারায়ণগঞ্জের আদালত এ মামলায় এড. সাখাওয়াতের জামিন আবেদন করা হলে তা নামঞ্জুর হওয়ায় গত ১৫ নভেম্বর উচ্চ আদালত থেকে জামিন পান এড. সাখাওয়াত কিন্তু এদিনই ফতুল্লা থানার আরেকটি নাশকতার মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে আটকে রাখে এবং গত ২০ নভেম্বর সাখাওয়াত হোসেন খানের ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরন করে। আদালত রিমান্ড নামঞ্জুর করে দুই দিন জেল গেইটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেন এবং এ দুদিন জিজ্ঞাসাবাদের পুলিশী প্রতিবেদন পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে দাখিলের নির্দেশ দেন বিচারক।

আদালতের দেয়া নির্দেশনা মোতাবেক নির্দিষ্ট ১৫ দিন পরে ৫ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জের চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট খ অঞ্চলের বিচারক অশোক কুমার দত্তের আদালতে এড. সাখাওয়াত হোসেন খানের জামিন আবেদন করা হলে ফতুল্লা থানা পুলিশ প্রতিবেদন দাখিল না করে আরো ১৫ দিন সময় প্রার্থনা করে আদালতে। আদালত আগামী ১৭ ডিসেম্বর শুনানীর দিন ধার্য করে।

এদিকে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে বিএনপি’র দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী কারাবন্দি এড. সাখাওয়াত হোসেন খানের পক্ষে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দেন নেতাকর্মীরা আর গত ২১ নভেম্বর বিএনপি চেয়ারপার্সণের গুলশান কার্যালয়ে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান এবং মনোনয়ন বোর্ডের সাথে সাক্ষাতকার পর্বে এড. সাখাওয়াত হোসেন খানের পক্ষে তার স্ত্রী এড. শামীমা খান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here